একুশের সেরা কবিতা

একুশের সেরা কবিতা

 

সুপ্রিয় পাঠক । সবাইকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন । একুশে ফেব্রুয়ারি নিয়ে অনেক ছড়া কবিতা লেখা হয়েছে । এখনো হচ্ছে । আগামীতেও লেখা হবে । পৃথিবীতে বাঙালি জাতি যতদিন থাকবে ততদিন লেখা হবে ইনশাআল্লাহ।

আগে লেখা কয়েকজন কবির নির্বাচিত কয়েকটি ছড়া কবিতা আজ আপনাদের সাথে শেয়ার করা হচ্ছে । আশা করি আপনাদের ভালো লাগবে । নিজেদের এবং ছোটদের আবৃত্তি করতে সহজ হবে । নিচের লেখাগুলো লক্ষ্য করুন ।

 

একুশের সেরা কবিতা

 

বাংলা ভাষা

ফারহান বিল্লাহ

 

হয় ইতিহাস ভাষা নিয়ে

করে ভীষণ যুদ্ধ

আমরা এখন ভুলছি সবাই

সেই ইতিহাসসুদ্ধ ।

 

ভাষার জন্য সালাম রফিক

দেয় বিলিয়ে রক্ত

আর সাথে সব বাঙালিরা

হলো ভাষার ভক্ত ।

 

সেই ভাষা এক মিষ্টি মধুর

বিশ্ব দিল দৃষ্টি

হয় পরিচয় বিশ্ব মাঝে

ভাষা দিবস সৃষ্টি ।

 

কিন্তু আজই বাংলা ছাড়া

হয় ব্যবহার ভিন্ন

ইংরেজি বা হিন্দি মিলাই

বাংলা করি ছিন্ন ।

একুশের সেরা কবিতা

 

দিবস পালন করে ওরা

দিচ্ছে ভাষার মূল্য

আর বাঙালি করলো ভাষা

ছি তামাশার তুল্য ।

 

বাংলা দিয়ে সাজাই জীবন

বাংলা করি ধন্য

সব বাঙালি যাক হয়ে যাক

বাংলা ভাষার জন্য ।

 

 

ইতিহাসের পোকা

শরিফ আহমাদ

 

একুশ এলো মনের ভেতর

দিচ্ছে উঁকি কারা?

তারা–

ভাষার জন্য প্রাণ দিয়েছে যারা ।

 

ওরা ছিল খুব সাহসী

মায়ের বুকের গর্ব

খর্ব–

হয় না যেন ওদের বিজয় পর্ব ।

 

ইতিহাসের পোকা হয়ে

সবাই রেখো খেয়াল

দেয়াল–

গড়তে হবে রুখতে শকুন শেয়াল ।

 

রক্তমাখা ফেব্রুয়ারি

ইফতেখার হোসেন শিবলী

 

বাংলা ভাষার জন্য যারা

দিয়ে গেল প্রাণ

ইতিহাসের পাতায় লেখা

আছে তাদের দান ।

 

ইতিহাসে নয়তো শুধু

আছে সবার বুকে

তাদের দানে বাংলা ভাষা

আজ আমাদের মুখে ।

 

জীবন যারা দান করলো

বাংলা ভাষার তরে

তাদের কথা ভাবতে গেলে

গর্বে বুকটা ভরে ।

একুশের সেরা কবিতা

আজকে মোরা গল্প লিখছি

লিখছি ছড়া গান

তার জন্য বিলিয়ে গেল

যারা তাদের প্রাণ –

 

আমরা কভু তাদের এ দান

ভুলতে নাহি পারি

বাহান্নর সেই রক্তমাখা

একুশে ফেব্রুয়ারি ।

একুশের সেরা কবিতা

 

সবার মাথার তাজ

শরিফ আহমাদ

 

রাতের শেষে ভোর হয়েছে

আলোকিত দোর হয়েছে

ফুল ফুটেছে ওই ‌,

পাখ-পাখালি আনন্দে হইচই ।

 

শহীদ মিনার ছেয়ে আছে

হলুদ গাঁদা ফুলে

আজ‌ ছুটে যায় ছেলে-মেয়ে

ইশকুলে- ইশকুলে ‌।

 

বাংলা ভাষার গান শোনা যায়

ভাটিয়ালি টান শোনা যায়

ভালো লাগে খুব,

চারপাশে হয় ঝলমলানো রূপ ।

 

ফেব্রুয়ারীর একুশ তারিখ

ভাষা দিবস আজ

রফিক সালাম বরকতেরা

সবার মাথার তাজ ।

একুশের সেরা কবিতা

 

ভাষার গর্ব

ইফতেখার হোসেন শিবলী

 

আমার ভাষা বাংলা ভাষা

গর্বিত তাই আমি

বিশ্ব মাঝে বাংলা ভাষাই

সবয়ে বেশি দামি ।

 

বুকের তাজা রক্ত দিয়ে

কিনতে হলো‌ ভাষা

তারই মাঝে মিশে আছে

কোটি প্রাণের আশা ।

 

এ বিশ্বে আর কারো নেই

এমন অবদান

রাষ্ট্রভাষার দাবি নিয়ে

দেয়নি কেউ প্রাণ ।

 

বীর বাঙালির সাহস আছে

এটাই বড় গুণ

ভাষার জন্য অকাতরে

দিল বুকের খুন ।

 

 

ভাষার লড়াই

শরিফ আহমাদ

 

ঐ যে সেদিন হয়েছিল

ভাষার লড়াই

বুক ফুলিয়ে বলছি কথা

করছি বড়াই ৷

 

ড্রাকুলাদের রুখতে গিয়ে

লড়লো যারা

বাংলা মায়ের মাথার মুকুট

আজকে তারা ৷

 

ঐ শহীদের ত্যাগের কাছে

আমরা ঋণী

ভুলবো না তাদের অবদান

কোনো দিনই ৷

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ‍উপলক্ষ্যে ছড়া কবিতা 

 

বুকের রক্ত

ইফতেখার হোসেন শিবলী

 

বাংলা ভাষা অনেক দামি

তুমিও জানো জানি আমি ।

ভাষার জন্য বুকের রক্ত

দেওয়াটা ভাই অনেক শক্ত ।

 

সেই কাজটাই করলো যারা

অকুতোভয় সাহসী তারা ।

বুকটা পেতে বুলেট নিলো

ভাষার জন্য জীবন দিল ।

 

পূরণ হলো তাদের আশা

বাংলা হলো রাষ্ট্রভাষা।

 

একুশের সেরা কবিতা

বাংলা ভাষা

শরিফ আহমাদ

 

বাংলা ভাষা আমাদের

খেটে খাওয়া ঘামাদের

মায়ের কাছে বাংলা ভাষা

শিখি সবার আগে,

বাংলা ভাষায়

কান্না হাসায়

কাছে আশায়

ভালোবাসায়

বড্ড ভালো লাগে ।

 

ভাষার জন্য জীবন দেয়া গল্প

বীর বাঙালি যাইনি ভুলে

প্রকাশ করি অল্প ।

 

বাংলা ভাষা থাকুক হয়ে

চিরকালের গর্ব

বাংলা ভাষা হোক ব্যবহার

ঠিক রেখে মান পর্ব ।

বীর শহীদের দান

শরিফ আহমাদ

 

বাংলা ভাষার জন্য যারা

দিয়ে গেছে প্রাণ

তাদের অবদান–

ইতিহাসের পাতায় পাতায় লেখা

তাদের থেকে অনেক কিছু শেখা ।

 

মাকে ভালবাসতে হবে

মুখের ভাষা তার

হবে অলংকার–

মিলেমিশে থাকতে হবে সুখে

দেশদ্রোহীদের দিতে হবে রুখে ।

 

ভাষার জন্য জীবন দেওয়া

বিশ্বে নজীর নাই

জাতিসংঘ তাই–

বাংলা ভাষার স্বীকৃতিটা দিল

বীর শহীদের দানটি বড় ছিল ।‌

 

বাংলা ভাষা

শরিফ আহমাদ

 

ইংরেজি আজ শিখতে হবে

এটাই বিশ্বে চলে

মানুষ কথা বলে ।

একুশে ফেব্রুয়ারি কবিতা

 

আরবী ভাষা শিখতে হবে

কুরআন জানার জন্য

করতে জীবন ধন্য।

 

উর্দু ফার্সী জানা ভালো

হবে অনেক ফায়দা

জ্ঞানী হওয়ার কায়দা ।

 

কিন্তু আমার বাংলা ভাষা

জন্মসূত্রে পাওয়া

আনন্দে গান গাওয়া ।

 

বাংলা ভাষায় তৃপ্তি আছে

যেন মধু মাখা

বুকের ভেতর রাখা ।

একুশে ফেব্রুয়ারি কবিতা

 

ভাষার গল্প

শরিফ আহমাদ

 

রাষ্ট্রভাষা উর্দু করার

ওরা ছিল পক্ষে

কাজ করে ঐ লক্ষ্যে ।

 

ফলাও করে প্রচার করে

উর্দু ভাষার কথা

প্রতিবাদে দামাল ছেলে

ভাঙে নীরবতা।

 

মিছিল মিটিং করতে থাকে

চালায় ওরা গুলি

উড়ায় মাথার খুলি।

 

রফিক সালাম বরকত আরো

নাম না জানা ছেলে

বিশ্বে প্রথম নজীর রেখে

রক্ত দিলো ঢেলে ।

 

ওদের ত্যাগে বাংলা ভাষা

আজ আমাদের মুখে

থাকবে ওরা বুকে ।

একুশে ফেব্রুয়ারি কবিতা

 

ভাষা শহীদ

শরিফ আহমাদ

 

একটা ছবি আঁকবে খুকি

একটা ছবি খোকা

নয়তো ওরা বোকা ।

 

রঙ তুলি রঙ হাতে নিয়ে

আঁকে হেলে দুলে

শহীদ মিনার আঁকলো আগে

হলুদ গাঁদা ফুলে ।

 

টুকটুকে লাল সূর্য আঁকে

শহীদ মিনার ঘিরে

দৃষ্টি আসে ফিরে ।

 

আশেপাশে আঁকল মানুষ

হাতটা আঁকার ভালো

ফেব্রুয়ারীর একুশ তারিখ

সামনে জ্বালায় আলো ।

 

আঁকায় তারা করলো প্রমাণ

ভাষা শহীদ স্মৃতি

পেল সবার প্রীতি ।

 

 

 

 

 

 

 

 

Leave a Comment