কানাডা যাওয়ার সহজ উপায় । কানাডা কাজের ভিসা ২০২৩ বিস্তারিত জানুন

কানাডা যাওয়ার সহজ উপায় । কানাডা কাজের ভিসা ২০২২

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রহমাতুল্লাহ । কেমন আছেন প্রিয় ভিজিটর আশা করি ভালো আছেন । আমিও আলহামদুলিল্লাহ ভালো আছি  । আজকে আপনাদের সাথে কথা বলবো কানাডা যাওয়ার সহজ কিছু উপায় কানাডা কাজের ভিসা ২০২২ নিয়ে ।

যুক্তরাষ্ট্রের ‘নিউজ এন্ড রিপোর্ট’ এর র‌্যাংকিংয়ে কানাডা হলো  বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে উন্নত জীবনযাপনের দেশ। সারা বিশ্বের মত বাংলাদেশীদের কাছেও কানাডা একটি স্বপ্নের দেশ  । কানাডার আয়তনের তুলনায় ঐ দেশের জনসংখ্যা কম এবং কানাডায় রাজনৈতিক বন্ধুত্বপূর্ন সম্পর্ক বিরাজ করায় । কানাডায় বাসবাসরত লোকজন বেশ সুখে শান্তিতেই থাকতে পারেন ।

আর একারনেই বিশ্বের বহু দেশে থেকে কানাডা পাড়ি জমানোর চেষ্টা করা হয় । কানাডায় বর্তমানে ৩ কোটি ৮০ লাখের মত লোকজন বাস করে । যাদের মাথা পিছু আয় ৫০ হাজার ডলার ।  পৃথীবির বহু দেশের বহু মানুষ কানাডয় অভিবাসি হওয়ার স্বাপ্ন দেখে  । আর এই স্বপ্ন পুররেন জন্য কেউ কেউ বেছে নেয় অবৈধ্য পথ ।

অবৈধ্য পথে কানাডা পাড়ি জমাতে গিয়ে পোহাতে নানা ভোগান্তি এবং হয়রানী । তবে বৈধ্য উপায়ে এবর সরকারিভাবে কম খরচে কানাডা যাওয়া যায় । আজকের লেখায় মুলতো এটাই আলোচনা করবো যে কানাডা যাওয়ার সহজ উপায় কি ?

 

সূচিপত্র

কানাডা যাওয়ার সহজ উপায় ২০২২

 

বাংলাদেশে থেকে কানাডা আসার বেশ কিছু  উপায় রয়েছে । পিএইচপি প্রোগ্রাম,এক্সপ্রেস এন্ট্রি স্টুডেন্ট, ভিসা,ওয়ার্ক পারমিট ভিসা (যারা কাজের জন্য কানাডা আসতে চায়),ভিজিট ভিসা এরকম অনেকগুলো উপায় রয়েছে। কানাডা জব ভিসা ২০২২ , সরকারিভাবে কানাডা যাওয়ার উপায় ,কানাডা কৃষি ভিসা ২০২২, কানাডা লেবার ভিসা ২০২২, বাংলাদেশ থেকে কানাডা যেতে কত টাকা লাগে, মোটকথা আজকে আমরা মোটামুটি সকল বিষয় নিয়েই কথা বলবো ইনশাআল্লাহ । আশা করি আজকের লেখাটি শেস পর্যন্ত পড়বেন ইনশাআল্লাহ ।

কানাডা যাওয়ার সহজ উপায় ব্যাবসা

 

আপনি যদি একজন ব্যাবসায়ী হয়ে থাকেন তাহলে আপনি খুব সহজেই কানাডা যেতে পারবেন । আপনার ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানে মাধ্যমে যদি আপনি কানাডায় ব্যাবসা করতে চান তাহেল আপনার জন্য কানাডা যাওয়া সহজ হবে । এছাড়াও আপনার ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানের সাথে যদি কানাডার কোন ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানের কোন যু্ক্তি থাকে তাহলে আপনি কানাডা নিচে ব্যাবসা না করেও আপনি কানাডা যেতে পারবেন । কানাডা যাওয়ার  এই পদ্ধতিকে নাফটা ভিসা বলে ।

[box type=”shadow” align=”aligncenter” class=”” width=””]পড়ুন – সৌদি আরব থেকে আমেরিকা যাওয়ার উপায়[/box]

তবে সমস্যা হলো এই নাফটা ভিসায় সকল দেশের নাগরিক কানাডা যেতে পারে না । শুধুমাত্র কিছু দেশের নাগরিকদের  এই নাফটা ভিসা কার্যকর। দেশগুলা হলো চিলি, জর্ডান, পেরু, কলম্বিয়া, লিচেনস্টাইন, সুইজারল্যান্ড, কোস্টারিকা, মেক্সিকো, যুক্তরাষ্ট্র, আইল্যান্ড, নরওয়ে, ইসরাইল এবং পানামা । তবে চিন্তার কোন কারন নেই আপনার জন্য কানাডা যাবার আরো পদ্ধতি আলোচনা করা হয়েছে এই পোষ্টে ।

কানাডা যাওয়ার সহজ উপায় চাকুরি 

 

আপনার হয়তো কোন ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান নেই  । বা ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান থাকলেও নাফটা ভিসার আওয়াতয় আপনি কানাডা যেতে পারছেন না  । তাই বলে কি আপনার কানাডা যাওয়া থেমে যাবে ? মোটেও না । আপনার জন্য অপেক্ষা করছে কানাডা জব ভিসা আপনি চাইলে জব ভিসায় কানাডা পাড়ি জমাতে পারেন খুব সহজেই ।

তবে কানাডা জব ভিসা পাবারও কিছু শর্ত আছে । আর সেই শর্ত গুলি হলো, কানাডার কোনো প্রতিষ্ঠানকে আপনাকে চাকুরির অফার লেটার এবং প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সরবরাহ করতে হবে।

কানাডা সরকার দক্ষ কর্মী নেবার জন্য বিশেষ ভিসা চালু করেছে ,মোট ৩৪৭ টি ক্যটাগরিতে জনবল নিয়োগ দেয় কানাডা সরকার ।

কানাডা যাওয়ার সহজ উপায় স্পন্সনরশিপ

 

কি ভাই এক ঢিলে দুই পাখি মারতে চান ? কিভাবে এক ঠিলে দুই পাখি মারবেন সেটা শুনুন তবে । প্রথমে কানাডার কোন মেয়েকে বিয়ে করে ফেলুন । তাহলেই আপনি কানাডার স্থায়ীভাবে বসবাস করার সুযোগ পাবেন । তবে এক্ষেত্রে আপনাকে পাক্কা দুই বছর অপেক্ষা করতে হবে । এই দুই বছর আপনাকে কানাডা কতৃপক্ষ পর্যবেক্ষনে রাখবে । তাদের পর্যবেক্ষনে আপনি পাশ করতে পারলেই কেল্লা ফলে । রাজ্যও পেলেন রাজকন্যাও পেলেন । এবার আপনাকে ঠেকায় কে ? হ্যা ঠেকাবে যদি আপনি এসব কাজ করতে গিয়ে কোন অসততার আশ্রয় নেন ।

 

কানাডা যাওয়ার সহজ উপায় লেখাপড়া

 

আপনি যদি একজন স্টুডেন্ট হয়ে থাকেন তাহলে আপনি খুব সহজেই স্টাডি ভিসায় কানাডা পাড়ি জমাতে পারেন । তবে এর জন্য আপনাকে আগে থেকেই কানাডার কোন প্রতিষ্ঠানে ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পর্ন করতে হবে । আর যদি সেখানে পড়ালেখার পাশাপাশি চাকুরি করতে চান তাহলে আপনাকে সেই সুযোগও দেওয়া হবে তবে জব করতে হবে আপনার পড়ালেখা করা নির্দিষ্ট স্টেটে ।

See also  সৌদি আরবের মেয়েদের অবস্থা জানুন

কানাডা যাওয়ার সহজ উপায় আইইসি

 

আপনি কানাডা যেতে চাইলে আইইসি ভিসায় কানাডা যেতে পারেন । ১৮ থেকে ৩৫ বছর বয়সী যুবকরা ‘ইন্টারন্যাশনাল এক্সপেরিয়েন্স কানাডা’ (আইইসি) এর আওতায় চাকুরির অফার লেটার ছাড়াই কানাডা যেতে পারে।

তবে এই সুবিধাও আবার  সকল  দেশের নাগরিকের জন্য নয়। এ ‍সুবিধার  আওতায় রয়েছে; অস্ট্রেলিয়া, ডেনমার্ক, জাপান, নরওয়ে, তাইওয়ান, অস্ট্রিয়া, এস্তোনিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, পোল্যান্ড, ইউক্রেইন, ফ্রান্স, লাটভিয়া, স্লোভাকিয়া, যুক্তরাজ্য, চিলি, জার্মানি, লিথুয়ানিয়া, স্লোভেনিয়া, কোস্টারিকা, হংকং, মেক্সিকো, স্পেইন, ক্রোয়েশিয়া, আয়ারল্যান্ড, নেদারল্যান্ড, সুইডেন, চেক রিপাবলিক, ইতালি, নিউজিল্যান্ড এবং সুইজারল্যান্ড।

কানাডা যাওয়ার সহজ উপায় ভ্রমন ভিসা

 

আপনি যদি একজন ভ্রমন পিপাসু লোক হয়ে থাকেন তাহলে জানবেন পৃথিবির সকল দেশের সকল ধরনের ভিসা বন্ধ থাকলেও ভ্রমন ভিসা বন্ধ থাকার নজির খুব কম । আপনি এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে ভিজিট ভিসায় কানাডা পাড়ি জমাতে পারেন খুব সহজেই । তাহলে আর দেরি কেন চলে যান ভিজিট ভিসায় কানাডা ।

[box type=”shadow” align=”aligncenter” class=”” width=””]কাতার আইডি চেক করুন অনলাইনে [/box]

তবে এ ক্ষেত্রে কিছু প্রশ্নে সম্মুখিন হতে হয়ে । ভিসা দেবার সময় দুতাবাস কতৃপক্ষ আপনাকে বিভিন্ন প্রশ্ন জিঙ্গাসা করবে তখন যদি তাদের মনে হয় যে আপনি কানাডা গিয়ে আর ফিরে আসতে চান না তাহলে আপনাকে কানাডা যাওয়ার ভিসা না ও দিতে পারে । কাজেই যাই করেন সাবধানে করবেন ।

উদ্যোক্তা হিসেবে কানাডা যাওয়ার সহজ উপায়

 

আপনার হাতে যদি নগদ টাকা থাকে তাহলে আপনি উদ্যোক্তা হিসেবে কানাডায় আপনার ব্যবসা শুরু করতে পারেন । এবং কানাডাতেও যেতে পারেন ।

নতুন বিসনেস দার করাতে কি পরিমান টাকা খরচ হয় কি কি অভিজ্ঞতা লাগে সবই  আপনাকে জানতে হবে ।

 

কানাডা যাওয়ার সহজ উপায় ফ্যামিলি পোগ্রাম 

 

বর্তমানে ফ্যামিলি পোগ্রাম এর মাধ্যমে অনেকেই কানাডা যাচ্ছেন । আপনিও কানাডা যাওয়ার সহজ পথে ট্রাই করতে পারেন ।

কানাডা যাওয়ার সহজ উপায় ইকোনমিক প্রোগ্রাম 

 

আপনি ইকোনমিক প্রোগ্রামের মাধ্যমেও কানাডা পাড়ি দিতে পারবেন । প্রতিটি কাজের ভিসা সমন্ধে বিস্তারিত কথা বলতেছি এবং বললো তাই আমার কাছে অনুরোধ থাকবে পুরো লেখাটি মনোযোগ সহকারে পড়বেন । তাহলেই আর আপনার কানাডা যাওয়ার বিষয়ে কোন প্রশ্ন থাকবে না ।

কানাডা যাওয়ার যোগ্যতা 

 

স্বপ্নের দেশ কানাডায় সবাই যেতে চায়। তবে কানাডা যাওয়া সবার পক্ষে সম্ভব হয়না। কানাডা তারাই যেতে পারে যাদের নির্দিষ্ট কোন কাজে  দক্ষতা এবং যোগ্যতা থাকে।

যেমন আপনার যদি কৃষি কাজে দক্ষতা থাকে তাহলে আপনি কানাডা কৃষি ভিসায় কানাডা পাড়ি জমাতে পারবেন। আপনি যদি  ভালো রান্না করতে পারেন। তাহলে আপনার জন্য কানাডা রেষ্টুরেন্ট ভিসার দরজা খোলা আছে। আপনি দক্ষ ইঞ্জিনিয়ার?  আপনার জন্যও কানাডার দরজা খোলা। মোট কথা কানাডা সরকার দক্ষ জনবল খুঁজে থাকে। আপনি দক্ষ হলে আপনার জন্য কানাডা যাওয়ার রাস্তা একদম পরিষ্কার। দক্ষতা না থাকলে যত এজেন্সীর পিছনেই ঘুরেন না কেন আপনি কানাডা যেতে পারবেন না।

কানাডা ভিসা ক্যাটাগরি

 

কানাডা ভিসা ক্যাটাগরি প্রধানত দুই প্রকার 

১ । Permanent Resident ( PR )

২। Tempotary Resident ( TR )

# Permanent Resident ( PR )  হলো কানাডায় স্থায়ী বাসিন্দাদের মতই সুযোগ সুবিধা ভোগ করতে পারবেন । এই ভিসা প্রতি ৫ বছর পর পর রিনিউ করতে হয় ।

# Tempotary Resident ( TR )  এর আবার বিভিন্ন ক্যাটাগরি আছে । 

স্টুডেন্ট ভিসা, টুরিষ্ট ভিসা , ওয়ার্ক পারমিট ভিসা,  এসব ক্যাটাগিরির ভিতরেও আবার বিভিন্ন সাব ক্যাটাগরির ভিসা আছে । আজকে সব কিছু নিয়েই কথা বলবো ইনশাআল্লাহ । শুধু দরকার আপনাদের ধৈর্য্যসকারে লেখাটি শেষ পর্যন্ত কন্টিনিউ করা ।

কানাডা ভিসা ক্যাটাগরি
কানাডা ভিসা ক্যাটাগরি

ছবি ক্রেডিট – Dr Manab চ্যানেল

কানাডা ভিসা ক্যাটাগরি ভিডিও

কানাডা স্টুডেন্ট ভিসা ২০২৩

 

Tempotary Resident Visa ক্যাটাগরির মধ্যেই কানাডা স্টুডেন্ট ভিসা । আপনি যদি একজন ছাত্র হয়ে থাকেন এবং কানাডা গিয়ে আপনার পড়ালেখা চালিয়ে যেতে চান তাহলে আপনি কানাডা স্টুডেন্ট ভিসায় কানাডায় পাড়ি জমাতে পারেন । তবে এর জন্য অব্যশই আপনাকে কানাডা সরকার কতৃক অস্থায়ী কানাডা আবাসিক ভিসা (TRV)  অনুমোদন নিতে হবে।

কানাডা স্টুডেন্ট ভিসা কি ?

 

কানাডা স্টুডেন্ট ভিসা হলো একটি স্টাডি পারমিট নথি । যা একজন স্টুডেন্ট কে কানাডায় পড়াশোনা করার সুযোগ দেয় । একজন ছাত্র তার কোর্স চলাকালীন সময় পর্যন্ত এই ভিসায় কানাডা অবস্থান করতে পারে ।

কানাডা স্টুডেন্ট ভিসা যোগ্যতা

 

কানাডায় স্টুডেন্ট ভিসা বা স্টাডি পারমিট নিতে হলে, অবশ্যই আপনাকে কানাডা স্বীকৃত কোন বিশ্বিবদ্যালয় থেকে অফার লেটার পেতে হবে।

অফার লেটার পেতে আপনাকে কানাডার বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য আবেদন করতে হবে। কিভাবে অনলাইনে আবেদন করবেন সেই সিস্টেম সংশ্লিষ্ট বিশ্বিবদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে পেয়ে যাবেন। আবেদনের পর আপনি ভর্তির জন্য অফার লেটার পেলে আপনি স্টুডেন্ট ভিসা পাওয়ার যোগ্যতা অর্জন করলেন।

কানাডা স্টুডেন্ট ভিসা প্রসেসিং

 

এখন আমরা জানবো কিভাবে কানাডা স্টুডেন্ট ভিসা প্রসেসিং করবেন।
আসলে কানাডা স্টুডেন্ট ভিসা নামে কিছু নাই। স্টাডি পারমিট কে সবাই স্টুডেন্ট ভিসা বলে থাকে। আর এই স্টাডি পারমিট বা স্টুডেন্ট ভিসা নির্ভর করে আপনার শিক্ষা কোর্সের মেয়াদের উপর। আপনার কোর্স যদি ৪ বছর মেয়াদী হয় তাহলে আপনাকে ৪ বছর সহ অতিরিক্ত আরো ৯০ দিনের স্টাডি পারমিট দেওয়া হবে।

পড়ছেন – স্টুডেন্ট ভিসায় কানাডা যাওয়ার উপায়

 

তবে আপনার কোর্সের মেয়াদকাল যদি ৬ মাসের কম হয় তাহলে আপনার কোন স্টাডি পারমিট লাগবে না। এছাড়াও আপনার পরিবারের কোন সদস্য যদি কানাডায় অবস্থান করে থাকে তবুও আপনার স্টাডি পারমিট নিতে হবে না।

See also  অনলাইনে বাসের টিকিট কাটার নিয়ম ২০২৩

সেমভাবে আপনার বা আপনার পরিবারের কারো যদি নিবন্ধিত ইন্ডিয়ান স্ট্যাটাস থেকে থাকে, তাহলেও আপনাকে স্টাডি পারমিট করতে হবে না।

কানাডা স্টুডেন্ট ভিসা আবেদন করার নিয়ম

 

কানাডা স্টুডেন্ট ভিসা আবেদন করতে প্রথমেই আপনাকে যা করতে হবে তা হলো,
আপনার নিকটস্থ কানাডিয়ান এম্বাসিতে গিয়ে স্ব শরীরে আবেদন করুন। অথবা আপনি চাইলে অনলাইনে সিটিজেনশিপ অ্যান্ড ইমিগ্রেশন কানাডার (CIC) ওয়েবে আবেদন করুন।

কানাডা স্টুডেন্ট ভিসা পেতে যে সমস্ত কাগজ পত্র লাগবে

 

○কানাডার কোন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অফার লেটার
○কানাডায় অবস্থানকালে আপনার থাকা খাওয়া সহ যাবতীয় খরচ বহনের যোগ্যতা থাকার প্রমান পত্র।
○কানাডার কোন ব্যাংকে নিজের নামে একাউন্ট থাকতে হবে।
○আপনার মেডিকেল রিপোর্ট লাগবে। আপনি যে সুস্থ সেটা প্রমান করতে হবে।
○আপনি কোন সন্ত্রাসী গোষ্টির সাথে জরিত নেই তার প্রমান পত্র
○আপনি কানাডা থাকা অবস্থায় কোন অপরাধমূলক কর্মকান্ডের সাথে জরিত হবেন না মর্মে অঙ্গীকারনামা
○যে ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠান আপনার স্টাডি খরচ বহন করবে, সেই ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠান কতৃক প্রদানকৃত চিঠি দেখাতে হবে।
○কানাডার কোন বিশ্বিবদ্যালয় থেকে আপনি যদি স্কলারশিপ পেয়ে থাকেন সেটার প্রমান পত্র
উপরে উল্লেখ্যিত সকল কাগজপত্র সংগ্রহ করে আপনি কানাডা স্টুডেন্ট ভিসা জন্য আবেদন করতে পারবেন।

কানাডা স্টুডেন্ট ভিসা খরচ ২০২৩

 

কানাডা যাওয়ার সহজ উপায় নিয়ে আজকের লেখায় এখন আমরা জানবো কানাডা স্টুডেন্ট ভিসা খরচ ২০২৩ কত টাকা। কানাডা স্টুডেন্ট ভিসা আবেদন ফি খুব বেশী না। কানাডিয়ান মুদ্রায় ১৫০ CAD যা বাংলাদেশী টাকায় মাত্র 11,265.10 টাকা।

এরপর যদি আপনার বায়োমেট্রিক ইনফরমেশন দরকার হয় তখন আপনি আপনার নিকটস্থ ভিসা অ্যাপ্লিকেশন সেন্টার থেকে বায়োমেট্রিক ইনফরমেশন ও ছবি তুলে পাঠাবেন । তারজন্য ১৬০০০ থেকে ১৮০০০ টাকার মতো খরচ হতে পারে।

কানাডা স্টুডেন্ট ভিসা ২০২৩

 

আপনার আবেদন পত্র গ্রহীত না হলে আপনাকে গ্রহীত না হবার কারন জানিয়ে মেইল করবে। আর যদি আপনার কানাডা ভিসা আবেদন মঞ্জুর হয়ে যায়। তাহলে আপনাকে তারা একটি কনফার্মেশন লেটার পাঠাবে। এই লেটার আপনি সংরক্ষণ করবেন এবং কানাডা পৌঁছানোর পর ইমিগ্রেশন অফিসে দেখাবেন ব্যাস কাজ শেষ!

[box type=”shadow” align=”aligncenter” class=”” width=””]অনলাইনে বিমানের টিকেট কানার নিয়ম জানতে ক্লিক করুন [/box]

স্টাডি পারমিট তো পেয়ে গেলেন এখন কি আপনি কানাডায় যেতে পারবেন? জ্বি না শুধু স্টাডি পারমিট নিয়েই আপনি কানাডা যেতে পারবেন না। কানাডায় যেতে হলে আপনার দরকার টেম্পোরারি রেসিডেন্ট ভিসা। কানাডা যাওয়ার সহজ উপায় এর এ পর্বে আমরা জানবো কিভাবে টেম্পোরারি রেসিডেন্ট ভিসার আবেদন করতে হয়।

টেম্পোরারি রেসিডেন্ট ভিসা আবেদন করার নিয়ম

 

টেম্পোরারি রেসিডেন্ট ভিসা আবেদন একদম সহজ। তবে এরজন্য কিছু কাগজ পত্র লাগবে আপনার। টেম্পোরারি রেসিডেন্ট ভিসা পেতে কি কি কাগজপত্র লাগবে সেটাই জানবো এখন

○যে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছেন সেই প্রতিষ্ঠান কৃতিক দেওয়া অফার লেটারের মুল কপি
○৪ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি
○কোর্সের সময়সীমার চেয়ে একমাস বেশী মেয়াদের পাসপোর্ট
○সকল শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্র
○আপনার ভোটার আইডি কার্ড, জন্মদিন সহ সকল জাতীয় কাগজ পত্রের ফটোকপি
○আর্থিক স্বচ্ছলতার প্রমানপত্র।
○স্পনসরশীপ প্রতিষ্ঠানের প্রত্যায়নপত্র
○স্টাডি পারমিট ফি দেওয়া হয়েছে কিনা তার প্রমানপত্র
○ভিসা এনরোলমেন্টের ইলেকট্রনিক কনফার্মেশনের স্ক্যান কপি

উপরিউক্ত সকল কাগজপত্র সংগ্রহ করে কানাডিয়ান এম্বাসিতে টেম্পোরারি রেসিডেন্ট ভিসার জন্য আবেদন করতে হবে। আবেদন গ্রহিত হয়েলেই স্বপ্নের দেশ কানাডায় যেতে আপনার আর কোন বাধা থাকলো না।

 

কানাডা কাজের ভিসা ২০২৩ / কানাডা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা ২০২৩

 

কানাডা যাওয়ার সহজ উপায় নিয়ে লেখার এ পর্যায়ে আমরা কথা বলবো কানাডা কাজের ভিসা বা কানাডা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিয়ে । এখন আমরা জানবো কানাডা জব ভিসা বা কানাডা কাজের বা কানাডা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা পেতে কি কি কাগজ পত্র লাগবে এবং কিভাবে কানাডা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা আবেদন করবেন  ।

 

কানাডা কাজের ভিসা বা ওয়াক পারমিট ভিসা পেতে কি কি কাগজপত্র লাগবে 

 

আপনি যদি কাজের উদ্দেশ্যে কানাডা যেতে চান । তাহলে আপনাকে কানাডা কাজের ভিসা জোগার করতে হবে । বা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা জোগার করতে হবে । আর কানাডা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা পেতে কিছু কাগজ পত্র লাগবে । সেগুলো হলো

প্রথমেই আপনার দরকার কানাডা অবস্থিত কোন কম্পানী থেকে কাজের অফার পাওয়া । আর এজন্য আপনাকে কানাডার বিভিন্ন কম্পানীতে আবেদন করতে হবে। কানাডার কম্পানীতে অনলাইনে আবেদন করতে আপনার দরকার হবে কানাডার স্টাইলে কভার লেটার এবং কানাডিয়ান স্টাইলের একটি সিভি ।

আপনি যদি কানাডার কোন কম্পানী থেকে জব অফার বা ওয়ার্ক পারমিট পেয়ে যান তখন আপনার দরকার হবে কানাডা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা । আর কানাডা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা আবেদন করতে দরকার হবে আপনার কিছু কাগজ পত্র । ওয়ার্ক পারমিট ভিসা আবেদন করতে কি কি কাগজপত্র লাগবে সেটাই এখন জানাবো।

কানাডা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা প্রসেসিং করতে  যা যা লাগবে ।

 

১ । পাসপোর্ট লাগবেঃ কানাডা  ওয়ার্ক পারমিট ভিসা আবেদন করতে দরকার হবে আপনার নূন্যতম ৬ মাস মেয়াদী পাসপোর্ট । আপনার যদি পাসপোর্ট এর মেয়াদ শেষ হয়ে থাকে তাহলে এখনি রিনিউ করে নিন । আর যদি পাসপোর্ট করা না থাকে তাহলে নতুন করে পাসপোর্ট করে নিন । পাসপোর্ট না হলে আপনি কানাডা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা বা কানাডা কাজের ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন না ।

২ । আপনার ছবি লাগবেঃ কানাডা কাজের ভিসা বা কানাডা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা আবেদন করার জন্য দরকার হবে আপনার সদ্য তোলা চার কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি ।

৩ । শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্রঃ কানাডা যেতে হলে আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতার সকল সনদপত্রের ফটোকপি লাগবে । একমাত্র ডি ক্যাটাগরির ভিসা ছাড়া আর সকল ভিসার জন্য শিক্ষাগত যোগ্যতা ব্যাধতামূলক । কাজেই কানাডা কাজের ভিসা আবেদন করার আগে এসব কাগজপত্র জোগার করে রাখবেন ।

See also  বিমান টিকেট কাউন্টার ফোন নাম্বার 2023

৪। অভিজ্ঞতা সনদপত্রঃ কানাডা জব ভিসা বা কাজের ভিসার জন্য অভিজ্ঞতা সনদ পত্র খুবই জরুরী । এই একটি বিষয়ে কানাডা সরকার খুবই কঠর । অদক্ষ্য জনশক্তি কানাডা এলাউ করে না । তাই আপনি যে কাজের জন্যই যান সেই কাজে আপনার দক্ষতা সনদপত্র থাকতে হবে ।

৫ । ব্যাংক বেলেন্স দেখাতে হবেঃ কানাডা গিয়ে কোন কারনে আপনি কাজ পেলেন না বা কোন বিপদে পরলেন এ অবস্থায় আপনি কিভাবে বিপদ থেকে উদ্ধাের হবেন তারজন্য আপনার ব্যাংক স্টেটমেন্ট দেখাতে হবে ।

৬ । মেডিক্যাল রিপোর্টঃ কানাডা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা আবেদন করার আগে আপনার স্বাস্থ্য পরিক্ষার সনদ পত্র লাগবে । তবে এই সনদ পত্র যেকোন মেডিক্যাল থেকে টাকা দিয়ে ভুলভাল রিপোর্ট দিলে চলবে না । কানাডা অনুমোদিত মেডিক্যাল সেন্টার থেকে স্বাস্থ্য পরিক্ষা করতে হবে । তবেই মিলবে সঠিক মেডিক্যাল রিপোর্ট

৭ । ভিসা পে রশিদঃ ভিসা আবেদন করার জন্য যে ফি জমা দিয়েছেন সেই ভিসা পে রশিদ লাগবে ওয়ার্ক পারমিট ভিসা আবেদন করার জন্য।

৮ । পুলিশ ক্লিয়ারেন্সঃ কানাডা কাজের ভিসা আবেদন করার সময় আপনার পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সনদ লাগবে । আপনার নামে কোন মামলা আছে কিনা বা আপনার নামে কোন অভিযোগ আছে কিনা সেটা দেখার জন্য দরকার পুলিশ ক্লিয়ারেন্স । পুলিশ ক্লিয়ারেন্স পেতে আপনি আপনার নিকটস্থ থানায় যোগাযোগ করুন । এছাড়াও এখন অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স আবেদন করে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সনদ নেওয়া যায়

[box type=”shadow” align=”aligncenter” class=”” width=””]পড়ুন – বিদেশ যাওয়ার জন্য পুলিশ ক্লিয়ারেন্স আবেদন করার নিয়ম[/box]

এই সকল ডকুমেন্ট সংগ্রহ করার পর আপনি কানাডা এম্বাসিতে স্বশরীরে গিয়ে কানাডা কাজের ভিসা বা ওয়ার্ক পারমিট ভিসার জন্য আবেনদ জমা দিতে পারবেন ।  সকল ডকুমেন্ট ঠিক থাকলেই আপনার জন্য কানাডার দরজা খোলা ।

 

কানাডা কৃষি ভিসা ২০২৩

 

কানাডা যাওয়ার সহজ উপায় নিয়ে লেখার এ পর্যায়ে আমরা কথা বলবো কানাডা কৃষি ভিসা নিয়ে । আপনি যদি কৃষি কাজে দক্ষ হন এবং কানাডায় কৃষি কাজ করে ভাগ্যের চাকা বদলাতে চান তাহলে আজকের পোষ্টের এই অংশ আপনার জন্যই ।

কানাডা সরকার কানাডায় কৃষি বিপ্লব ঘটানোর লক্ষ্যে কানাডা কৃষি ভিসার সুযোগ করেছে । আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা যদি কম থাকে কিন্তু কানাডা যাওয়ার প্রবল ইচ্ছে থাকে তাহলে আপনি কৃষি ভিসায় কানাডা গিয়ে আপনার মনের অপুরণী ইচ্ছা পুরণ করতে পারবেন খুব সহজেই ।

[box type=”warning” align=”aligncenter” class=”” width=””]তবে আপনি যে কাজেই কানাডা যেতে চান না কেন, আপনাকে মোটামুটি ইংরেজী জানা এবং বলতে পারা জানতে হবে । তা না পারলে আপনার জন্য কানাডার দরজা বন্ধ । [/box]

কানাডা কৃষি কাজের বেতন কত ?

 

অনেকেই জানতে চান কানাডা কৃষি কাজের বেতন কত ? আপনি যদি কানাডা কৃষি ভিসায় যান তাহলে আপনি বেতন পাবেন ২ লাখ থেকে ৩ লাখ টাকা পর্যন্ত ।

 

কৃষি ভিসায় কানাডা যেতে যে সব কাগজপত্র লাগবে

 

  • ৬ মাস মেয়াদী পাসপোর্ট
  • চারকপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি
  • ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি
  • কৃষি কাজের দক্ষতা সনদপত্র
  • মোটামুটি ইংরেজী দক্ষতা সনদপত্র
  • চেয়ারমেন সার্টিফিকেট ।

 

কানাডা ড্রাইভিং ভিসা ২০২৩

 

কানাডা যাওয়ার সহজ উপায় নিয়ে লেখার এ পর্যায়ে আলোচনা করবো কানাডা ড্রাইভিং ভিসা নিয়ে । আপনি যদি একজন গাড়ি ড্রাইভার হন তাহলে আপনি আপনার গাড়ী চালানোর দক্ষতা কাজে লাগিয়ে কানাডার ড্রাইভিং ভিসা পেতে পারেন ।

 

সরকারীভাবে কানাডা যাওয়ার উপায় ২০২৩

 

কানাডা যাওয়ার সহজ উপায় নিয়ে অকেক্ষনে ধরেই কথা বলে আসতেছি । উপরিউক্ত সকল কথাই বলেছি বেসরকারীভাবে কানাডা  যাওয়ার সিস্টেম নিয়ে ।  এখন আমরা কথা বলবো সরকারীভাবে কানাডা যাওয়ার উপায় নিয়ে  ।

আপনি বিভিন্ন কাজের ভিসায় সরকারীভাবে কানাডা পাড়ি জমাতে পারবেন ।

  • চাকুরিজীবি হিসেবে
  • কৃষি শ্রমীক হিসেবে
  • হোটেল শ্রমীক হিসেবে
  • ফ্যশান ডিজাইনার হিসেবে
  • সেলস রিপ্রেজন্টেটিভ হিসেবে ।

উপরেউলেখিত সকল কাজের ভিসা নিয়েই আপনি সরকারিভাবে কানাডা যেতে পারবেন ।

আপনি কোন কাজে দক্ষ হয়ে থাকেন তাহলে আপনার প্রথম কাজ হবে আপনার জানা কোন কাজে কানাডার কোন কম্পানী লোক নিচ্চে কিনা । এরপর আপনার কাজ হলো আপনার জেলার জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে গিয়ে প্রবাসী কল্যাণ শাখ অধিদপ্তরের অধিনে প্রয়োজনীয় সকল কাগজ পত্র জমা দিতে হবে ।

কানাডা যাওয়ার সহজ উপায় নিয়ে প্রশ্নউত্তর

[toggle title=”কানাডা ভিসার দাম কত ?” state=”open”]কানাডা ভিসা ক্যাটাগরির উপর নিভর করে কানাডা ভিসার দাম । কানাডা স্টুডেন্ট ভিসার দাম ১৫০ কানাডিয়ান ডলার । আর কানাডা কাজের ভিসার ফি ১৫৫ কানাডিয়ান ডলার[/toggle]

 

[toggle title=”কানাডা যেতে ielts কত পয়েন্ট লাগে” state=”open”]কানাডা যেতে সর্বনিম্ন ৬ পয়েন্ট লাগবে [/toggle]

[toggle title=”বাংলাদেশ থেকে কানাডা যেতে কত টাকা লাগে” state=”open”]বাংলাদেশ থেকে কানাডা যেতে ৪ থেকে ৭ লাখ টাকা লাগে [/toggle]

 

কানাডা ভিসা এজেন্সি

 

কানাডা যাওয়ার সহজ উপায় তো জানলেন এবার চাচ্ছেন কানাডা যেতে । কিন্তু কিভাবে কার মাধ্যমে কানাডা যাবেন তা ভেবে পাচ্ছেন না । আপনি চাইলে বিভিন্ন কানাডা ভিসা এজেন্সি এর মাধ্যমে কানাডা যেতে পারেন । তবে এক্ষেত্রে খুবই সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে । অনেকেই এজেন্সির নাম করে টাকা মেরে দেয়  । তাই আপনার নিজ দায়িত্বে ভালো কানাডা ভিসা এজেন্সি খুজে বের করুন । আমার সাথে কোন ভিসা এজেন্সি যোগযোগ করে এবং তাদের বিষয়ে ভালোভাবে খোজখবর নিয়ে আপনাদের কে জানিয়ে দেব এই ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে ইনশাআল্লাহ ।

শেষকথাঃ

 

কানাডা যাওয়ার সহজ উপায় । কানাডা কাজের ভিসা বা কানাডা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিয়ে অনেক কথা বললাম । আমার লেখার এই তথ্যগুলা যেহেতু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহিত তাই কোন তথ্য কম বেশী বা ভুল থাকতে পারে । আপনাদেরে কাছে সবিনয় অনুরোধ থাকবে আমার এই লেখায় যদি কোন ভুল চোখে পড়ে তাহলে অবশ্যই আমাকে কমেন্ট করে জানাবেন । আজকের মত এখানেই শেষ করছি ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন ইডু টিউন বিডি এর সাথেই থাকুন ।

 

রিলেটেড ট্যাগঃ

কানাডা জব ভিসা ২০২২
কানাডা ভিসা আবেদন ফরম ২০২২
সরকারিভাবে কানাডা যাওয়ার উপায়
কানাডা কৃষি ভিসা ২০২২
কানাডা যাওয়ার খরচ কত
কানাডা ভিসা ক্যাটাগরি
কানাডা লেবার ভিসা ২০২২
কানাডা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা 2022
কানাডা ভিসা খরচ
কানাডা যাওয়ার যোগ্যতা
কানাডা যেতে কত পয়েন্ট লাগে
কানাডা ভিসার দাম কত
কানাডা ভিসা পাওয়ার উপায়
কানাডা এম্বাসি বাংলাদেশ
জব ব্যাংক কানাডা ডি ক্যাটাগরি
কানাডা ভিসা খরচ ২০২২
কানাডা শ্রমিক ভিসা
কানাডা ভিসা আবেদন কেন্দ্র ঢাকা
কানাডা যাওয়ার সহজ উপায়
কানাডা কাজের ভিসা ২০২২
কানাডা স্টুডেন্ট ভিসা খরচ ২০২২
বাংলাদেশ থেকে কানাডা যাওয়ার উপায়
কানাডা ড্রাইভিং ভিসা
বাংলাদেশ থেকে কানাডা যেতে কত টাকা লাগে
কানাডা ওয়ার্ক পারমিট
কানাডা দেশ সম্পর্কে জানতে চাই
কানাডা যাওয়ার এজেন্সি
স্টুডেন্ট ভিসায় কানাডা যাওয়ার উপায়

Leave a Comment