ভোটার আইডি কার্ড চেক করার নিয়ম ২০২৩

ভোটার আইডি কার্ড চেক ২০২৩

আমরা বাংলাদেশের নাগরিক। আর জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর বা ভোটার আইডি কার্ড নাগরিকের পরিচয় বহন করে। বর্তমানে সরকারি-বেসরকারি সকল ক্ষেত্রে এনআইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয় পত্র গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। দৈনন্দিন জীবনে এনআইডি কার্ড ছাড়া কোনো কাজ কল্পনাও করা যায়না।

প্রতিনিয়ত আমরা বিভিন্ন ক্ষেত্রে বা উদ্দেশ্যে এনআইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয় পত্র ব্যবহার করে থাকি। যেমন-

  • ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খোলার ক্ষেত্রে
  • কলেজ বা অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের ভর্তি  হওয়ার ক্ষেত্রে
  • কোনো চাকরিতে যোগদান করার ক্ষেত্রে
  •  নতুন সিম রেজিস্ট্রেশন করার ক্ষেত্রে
  • ভোট দেওয়ার ক্ষেত্রে
  • মোবাইল ব্যাংকিং সেবার সাথে যুক্ত হতে। যেমন- বিকাশ, নগদ, রকেট, উপায় সহ অন্যান্য অ্যাকাউন্ট খোলার ক্ষেত্রে
  • পাসপোর্ট করার ক্ষেত্রে

এছাড়া আরো বিভিন্ন ক্ষেত্রে আমরা জাতীয় পরিচয় পত্র ব্যবহার করে থাকি। আমরা দেখতেই পাচ্ছি জাতীয় পরিচয় পত্র আমাদের জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ। তো আজকে ভোটার আইডি কার্ড চেক সম্পর্কে আলোচনা করা হবে। চলুন শুরু করা যাক!

নিচে ভোটার আইডি কার্ড চেক করার পদ্ধতি দেওয়া হলো-

১. NIDW এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইট থেকে ভোটার আইডি কার্ড চেক করার নিয়ম

ক. প্রথমে এই লিংকে ক্লিক করুন- services.nidw.gov.bd

খ. রেজিস্ট্রেশনে ক্লিক করার পর আপনার এনআইডি নাম্বার, জন্ম তারিখ, মোবাইল নাম্বার সহ অন্যান্য তথ্য দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করুন।

See also  primary admit card Download 2022 ( ২য় ধাপ)dpe admit 2022
ভোটার আইডি কার্ড রেজিস্ট্রেশন
রেজিস্ট্রেশন

গ. রেজিস্ট্রেশন হয়ে গেলে লগইন করুন এবং আপনার ভোটার আইডি কার্ড চেক করে নিন।

ভোটার আইডি কার্ড লগ ইন
লগ ইন

২. এসএমএস এর মাধ্যমে ভোটার আইডি কার্ড চেক করার নিয়ম

১০৫ নাম্বারে এসএমএস করার মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই আপনার ভোটার আইডি কার্ডের সকল তথ্য যাচাই করতে পারবেন। নিচে ধাপগুলো দেওয়া হলো-

ক. প্রথমে আপনার মোবাইলের মেসেজ অপশনে যান।

খ. এরপর নিচের টেমপ্লেট অনুযায়ী টাইপ করুন।

NID NIDNUMBER DD-MM-YYYY

উদাহরণ- NID 1234567890 28-05-2000

গ. এরপরে ‘105’ এই নাম্বারে সেন্ড করে দিন।

আরও পড়ুন- অনলাইনে নতুন ভোটার আবেদন করার নিয়ম ২০২৩

ঘ. ২৪ ঘন্টার মধ্যে এসএমএস এর মাধ্যমে ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য আপনাকে জানিয়ে দেওয়া হবে।

৩. ভূমি মন্ত্রণালয় ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ভোটার আইডি কার্ড চেক করার নিয়ম

ক. প্রথমে এই লিংকে ক্লিক করুন- ldtax.gov.bd/citizen/register

খ.  এরপরে নাগরিক কর্নার মেনুতে প্রবেশ করুন।

নাগরিক কর্নার
নাগরিক কর্নার

ঘ.  এরপর মোবাইল নাম্বার দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করে নিন এবং ওটিপি যাচাই করুন।

নাগরিক নিবন্ধন
নাগরিক নিবন্ধন

ঙ. এরপরে জাতীয় পরিচয় পত্র নম্বর ও জন্মতারিখ দিন এবং পরবর্তী পদক্ষেপে ক্লিক করুন। এভাবে আপনি আপনার ভোটার তথ্য পেয়ে যাবেন।

৪. পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড চেক করার পদ্ধতি

বর্তমানে বাংলাদেশের প্রায় সকল জায়গায় স্মার্ট আইডি কার্ডের প্রচলন শুরু হয়েছে। তবে অনেক এলাকায় এখনো পুরাতন আইডি কার্ড চলছে। পুরাতন আইডি কার্ড চেক করার পদ্ধতি এবং নতুন আইডি কার্ড চেক করার পদ্ধতি একই রকম।

উপরে এই বিষয়ে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হয়েছে। তাই আপনারা যারা নতুন ভোটার আইডি কার্ড বা স্মার্ট আইডি কার্ড পাননি, তারা উপরের পদ্ধতিগুলো অনুসরণ করে সহজেই পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড চেক করে নিতে পারবেন।

৫. ভোটার আইডি কার্ড চেক করার Apps

অ্যাপের মাধ্যমে ভোটার আইডি কার্ড চেক করার জন্য আপনাকে NID Wallet অ্যাপটি ডাউনলোড করতে হবে। এই অ্যাপটি আপনি প্লে স্টোরে পেয়ে যাবেন। ডাউনলোড লিঙ্ক- Download NID Wallet App

See also  উপায় একাউন্ট দেখার নিয়ম 2022
NID Wallet
NID Wallet App

এই অ্যাপটি বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনার অফিসিয়াল অ্যাপ। এই অ্যাপ থেকে ভোটার আইডি কার্ড চেক করার জন্য আপনাকে প্রয়োজনীয় তথ্য দিতে হবে এবং আপনি আপনার ভোটার আইডি কার্ড চেক করতে পারবেন অতি সহজেই।

এছাড়া এই অ্যাপের মাধ্যমে ভোটার আইডি কার্ড চেক করার পাশাপাশি আরো অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাজ করা যায়। এ সম্পর্কে পরবর্তী কোন পোস্টে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হবে।

৬. ভোটার আইডি কার্ড কেন চেক করা হয়?

আমাদের মধ্যে অনেকেরই প্রশ্ন থাকতে পারে যে, ভোটার আইডি কার্ড কেন চেক করা হয়? ভোটার আইডি কার্ডের মাধ্যমে আপনি আপনার পরিচয় যাচাই করতে পারেন।

এছাড়া আপনি যদি আপনার ভোটার আইডি কার্ড সংশোধনের আবেদন করে থাকেন তাহলে ভোটার আইডি কার্ড চেক করার মাধ্যমে সেই সংশোধন সঠিকভাবে সফল হয়েছে কিনা তা যাচাই করতে পারেন। আশা করি বিষয়টি বুঝতে পেরেছেন।

নোটঃ অনেক সময় দেখা যায়, নেটওয়ার্কের বিভিন্ন ধরনের সমস্যার কারণে এসএমএস পাওয়া যায় না। এতে বিচলিত হওয়ার কিছুই নেই। আপনি খুব তাড়াতাড়ি এসএমএস পেয়ে যাবেন।

কিন্তু বড় ধরনের নেটওয়ার্ক জনিত সমস্যার কারণে যদি এসএমএস নাও পেয়ে থাকেন তাহলে অন্যান্য পদ্ধতি গুলো ব্যবহার করতে পারেন। অবশ্যই কাজে দিবে।

শেষকথাঃ জাতীয় পরিচয় পত্র বা ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য গুলো কিভাবে চেক করা যায়- এ সম্পর্কে উপরে আলোচনা করা হয়েছে এবং বিভিন্ন পদ্ধতি শেয়ার করা হয়েছে। আশা করি আপনারা বিষয়গুলো বুঝতে পেরেছেন।

যদি বিষয়গুলো না বুঝতে পারেন তাহলে অবশ্যই আমাদের কমেন্ট করে জানাবেন। আমরা আপনাদের প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করবো। ধন্যবাদ ইডুটিউনবিডির সাথে থাকার জন্য।

Leave a Comment