লোভে পাপ পাপে মৃত্যু সকল শ্রেনীর জন্য

লোভে পাপ পাপে মৃত্যু
আসসালামু আলাইকুম প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা কেমন আছেন সবাই। আশা করি ভালো আছেন। আজকে আপনাদের জন্য খুবই কমন একটি ভাবসম্প্রসারন নিয়ে এলাম। আজকে আমরা ৭ম শ্রেনী থেকে ৯ম শ্রনী পযর্ন্ত প্রতিটি ক্লাসের জন্য আলাদা ভাবসম্প্রসারণ লিখবো ইনশাআল্লাহ।

লোভে পাপ, পাপে মৃত্যু ৭ম শ্রেনীঃ

ভাবসম্প্রসারনঃ লোভ মানুষের পরম শত্রু। তার বিবেক বিসর্জন দিয়ে তাকে ধ্বংসের দিকে ঠেলে দেয়। লোভের বশর্বতী মানুষ জীবনের সর্বনাশ ডেকে আনে।মানুষ নিজের ভোগের জন্য যখন কোন কিছু পাওয়ার প্রবল ইচ্ছা পোষন করে তখন তাকে লোভ বলে।
তখন যা নিজের নয় যা পাওয়ার অধিকার তার নেই, তা পাওয়ার জন্য মানুষ লোভী হয়ে ওঠে।সে তার ইচ্ছাকে সার্থক করে তুলতে চায়।লোভের মোহে সে সত্য, মিথ্যা, ভালো,মন্দ বিসর্জন দেয়।তার ন্যায় অন্যায় বোধ লোপ পায়।
সে পাপের সাথে ধাবিত হয়।নিজের স্বার্থের জন্য অন্যের সর্বনাশ করে।এভাবে লোভ মানুষকে পশুতে পরিনত করে।ডেকে আনে মৃত্যুর মতো ভয়াবহ পরিনাম।জীবনকে সুন্দর ও সার্থক করে তোলার জন্য লোভ বর্জন করা উচিত।

লোভে পাপ, পাপে মৃত্যু ৮ম শ্রেনী

মূলভাবঃ

লোভ মানুষকে হিতাহিত ও জ্ঞান শূন্য করে দেয়ও তাকে অসৎ উপায় অবলম্বন করতে প্ররোচিত করে।লোভি মানুষ পাপ কাজ করতে দ্বিধা বোধ করে না। লোভের পরিনাম অতি ভয়াবহ,এমনকি মৃত্যু ও বিচিত্র নয়।

সম্প্রসারিত ভাবঃ 

ভোগের নিমিত্তে উদ্ভান্ত আবেগ আর দূর্দমনীয় বাসনা থেকেই জাগতিক যাবতীয় পাপের উৎপত্তি।লোভের মায়ামহে মানুষ আচ্ছন্ন হয়ে মানুষ সত্য ও সুন্দরকে অবজ্ঞা  করে।সে বৈষায়িক প্রেরনায় পার্থিব ধন- সম্পদ আহরনে ব্যাস্ত থাকে।কিন্তু যখনই সে ব্যার্থ হয় তখন নির্ধিদায় নিমজ্জিত হয় পাপাচারে।
সে ক্রমশ অবৈধ ও জগন্যপথে অগ্রসর হয়।সম্ভোগের দিপালী উদ্যানে শুরু হয় পাপের উৎসব।মানুষ এ সময় হয়ে ওঠে পশুর মতো।তার এ পাপাচারের কারনে মৃত্যুর কালোছায়া ছায়াবাজির মতো দাপাদাপি করে ওঠে।অপরপক্ষে নির্লোভ ব্যাক্তি সত্যও সুন্দর জীবন লাভ করে।তার নিরাসক্ত জীবনে ভোগের তাড়না নেই। লোভি  পথভ্রষ্ট হয়।অন্যায়, অসত্য,পাপের পথে ধাবিত হয়ে মৃত্যুর মুখোমুখি হয়।
মন্তব্যঃ লোভ বর্জন না করলে সুন্দর ও সার্থক জীবন লাভ করা যায় না।নির্লোভ জীবন সকলের শ্রদ্ধা ও বক্তির অর্জন।

লোভে পাপ পাপে মৃত্যু  ৯ম শ্রেনী

ভাবসম্প্রসারনঃ

লোভ মানুষকে অন্যায় ও বিশৃঙখলা পথে ঠেলে দেয়। লোভ মানুষকে পশুর ন্যায় গড়ে তোলে। লোভি ব্যাক্তি কখনোই অন্যের ভালো চায় না অন্যের অনিষ্ঠ কামনা করে।
যা নিজের নয় যা পাওয়ার অধিকার নেই তা পাওয়ার ইচ্ছাতাকে অমানুষ গড়ে তোলে। লোভে আচ্ছন্ন হয়ে লোভি ব্যাক্তি মৃত্যুর ও মুখোমুখি হয়।নির্লোভ জীবন সবারই কাম্য। নির্লোভ ব্যাক্তি জীবনকে সুন্দর ও সার্থক করতে  সর্বদায় ন্যায়, সত্য,সুন্দর পথে চলে।
জীবনে সার্থকতা গড়ে তোলে।লোভ মানুষকে স্বাভাবিক ভাবে বাচতে দেয় না, লোভি ব্যাক্তি সর্বদায় অন্যায় এর পথ বেছে নেয় সে বিবেকহীন হয়ে পরে।জীবনকে সার্থক করতে নির্লোভ জীবন সবারই কাম্য।সত্য,সুন্দর, ন্যায়, পথে চলতে লোভ ত্যাগ করা উচিত।এতে সুন্দর জীবনে স্বার্থকতা সম্ভব।

শেষকথাঃ

 

See also  যুম এপ এ প্রোফাইল পিকচার দেওয়ার নিয়ম

তো প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা এই ছিলো আজকের ভাবসম্প্রসারণ লোভে পাপ পাপে মৃত্যু নিয়ে সকল ক্লাসের জন্য লেখা ভাবসম্প্রসারণ।

 

আশা করিরআপনাদের ভালো লেগেছে। সামনে এরকম আরো নতুন নতুন শিক্ষা বিষয়ক আপডেট পেতে আমাদের সাথে থাকুন ধন্যবাদ।

Leave a Comment