অনলাইনে ইনকাম

অনলাইন ইনকাম ২০২৩ – টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় বাংলাদেশে

অনলাইন ইনকাম ২০২৩ – টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় বাংলাদেশে

 

আসসালামু আলাইকুম। কেমন আছেন আপনি?  আশা করি ভালোই আছেন। আমিও আছি আলহামদুলিল্লাহ।  আজকে আপনাদের সাথে অনলাইন ইনকাম নিয়ে বিস্তারিত খোলামেলা কথা বলবো ইনশাআল্লাহ।

অনলাইনে ইনকাম করার উপায় নিয়ে না বলা অনেক কথাই আজ বলার চেষ্টা করবো ইনশাআল্লাহ।  আজকে এই লেখার মাধ্যমে অনলাইন ইনকাম বা ফ্রিলান্সিং আউটসোর্সিং নিয়ে যারা ভন্ডামি করে লাখ লাখ টাকা প্রতরণা করে আসছে তাদের মুখোশ ও খুলে দেব ইনশাআল্লাহ।

আজকের এই লেখায় টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় বাংলাদেশে এই টপিক নিয়েও বিস্তারিত কথা বলবো।

সূচিপত্র

অনলাইন ইনকাম ২০২৩

 

বর্তমানে বাংলাদেশে অনলাইন ইনকাম একটি ট্রেন্ডিং টপিকের নাম। ছোট থেকে শুরু করে বৃদ্ধ বয়সি মানুষ পর্যন্ত জানে ঘরে বসে  অনলাইনে ইনকাম করা যায়।  এই যে অনলাইন ইনকাম করার বিষয়টি এত ব্যাপক বিস্তৃত লাভ করেছে। এই সুযোগটা কাজে লাগাচ্ছে কিছু অসাধু কোর্স ব্যাবসায়ী। তারা অনলাইনে ইনকাম সফলতা স্বরূপ নানা লোভনীয় বিজ্ঞাপন দিয়ে সাধারণ মানুষদের পকেট কেটে হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা।

আপনারা যারা অনলাইনে ইনকাম করতে চান, তাদের জন্য এই লেখার শুরুতে একটি কথাই বলতে চাই। অনলাইনে ইনকাম করা বিষয়টি এত সহজ না। যতটা সহজ আপনি জানেন। তবে হ্যা যদি আপনি অনলাইন ইনকাম নিয়ে সঠিক গাইডলাইন পান তাহলে  আপনি অনলাইনে আনলিমিটেড টাকা ইনকাম করার সহজ  উপায় বুঝতে পারবেন। আর আমি আজকের এই পুরো আলোচনায় অনলাইনে ইনকাম অনেকগুলো সহজ উপায় বলে দেব ইনশাআল্লাহ।

টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় বাংলাদেশে

 

আচ্ছা একটা কথা চিন্তা করুন তো, আপনি কি এমনি এমনিই কাওকে টাকা দেবেন? আপনি যদি পাগল নিবোর্ধও হন তবুও আপনি কিন্তু কাওকে এমনিতে কিছু দেবেন না।

ঠিক তেমনি পরিশ্রম ছাড়া, কাজ করা ছাড়া কেউ আপনাকে একটি টাকাও দেবে না। বাংলাদেশে থেকে যদি আপনি সহজে অনেক বেশি টাকা ইনকাম করতে চান,  তাহলে আপনাকে অনলাইনে ইনকামের পথ খুঁজতে হবে। আর এই পথ খু্ব বেশী সহজ না ভাই। তবে হ্যা যারা কঠোর পরিশ্রমী এবং ধৈর্যশীল তাদের জন্য অনলাইনে আনলিমিটেড টাকা ইনকাম করা একদম সহজ।

পড়ুন – অনলাইনে ইনকাম মোবাইল দিয়ে

অফলাইনে যেমন আপনি কাজ করে টাকা পান। অনলাইনে ইনকাম করতে হলেও আপনাকে কোন না কোন কাজ জানতে হবে। আবার শুধু কাজ জানলেই হবে না। আপনাকে এক্সপার্ট লেভেলের কাজ জানতে হবে। তবেই আপনার কাছে টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় বাংলাদেশে বিষয়টি বুঝতে পারবেন।

আপনারা হয়তো অনেকের কাছে শুনেছেন, অনলাইনে লুডু খেলে ইনকাম করা যায়।  অনলাইনে ভিডিও দেখে ইনকাম করা যায়। আবার অনেকেই বলবে কিছু টাকা ইনভেস্ট করলে কোন কাজ না করেই বসে বসে অনলাইন থেকে  ইনকাম করা যায়। আসলে এই কথা গুলো সবই ফেক। হয়তো ভিডিও দেখে বা গেমস খেলে কিছু টাকা ইনকাম করা গেলেও যেতে পারে তবে সেটা পর্যাপ্ত না। ঐ টাকা দিয়ে আপনার Mb কেনার টাকাও হবে না।

পড়ুন – স্টুডেন্ট অনলাইনে ইনকাম বিকাশ পেমেন্ট

তাই এসব ছোটখাট বিনা পরিশ্রমের কাজের চিন্তা মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলুন চিন্তা করুন অনলাইন থেকে লাখ টাকা আয় করার। এখনি মাইন্ড সেটআপ করুন নির্দিষ্ট কোন কাজের উপর সুপার স্কিল্ড হবার।

এখন হয়তো আপনার  মনে মনে প্রশ্ন চলে এসেছে, ভাই তাহলে কোন কাজটি শিখবো? কি কাজ শিখলে অনলাইনে কাজ পাওয়া যাবে?  ভালো পরিমান টাকা ইনকাম করতে পারবো?

অনলাইনে ইনকাম করার উপায়

 

অনলাইনে আপনি বিভিন্ন কাজ করে ইনকাম করতে পারেন। যেমন,

  • ডিজিটাল মার্কেটিং
  • ওয়েব ডিজাইন / ডেভেলপমেন্ট
  • গ্রাফিক্স ডিজাইন
  • ভিডিও এডিটিং
  • ব্লগিং
  • এফিলিয়েট মার্কেটিং
  • সিপিএ মার্কেটিং

উপরিউক্ত বিষয় ছাড়াও আরো নানা ধরনের কাজ করে আপনি অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারবেন । আমি এই সকল টপিকেই বিস্তারিত কথা বলবো ইনশাআল্লাহ ।

ডিজিটাল মার্কেটিং করে অনলাইনে ইনকাম ২০২৩ 

বর্তমানে সবচেয়ে বেশী যে টপিকে কোর্স ব্যাবসায়ীরা প্রতারণা করে আসছে সেটা হলো ডিজিটাল মার্কেটিং এর কথা বলে ।   আর এই প্রতারণা থেকে বাচঁতে হলে আপনাকে ডিজিটাল মার্কেটিং সমন্ধে সচ্ছ ধারণা রাখতে হবে ।

ডিজিটাল মার্কেটিং কি ?

অনেকেই অনেকভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং এর সংজ্ঞা দেয় । আমি যদি সহজ ভাষায় বলি তাহলে  বলতে হয়, ডিজিটাল মার্কেটিং হলো যোগাযোগ মাধ্যমের সকল প্রকার আধুনিক প্রযুক্তি, বিশেষ করে ইন্টারনেটের সুবিধা ব্যবহার করে কোনো পণ্য বা সেবার প্রচারণা চালানো।

বিশেষ করে সোশ্যাল মিডিয়াগুলোতে বিজ্ঞাপন দেয়ার হার বর্তমানে সবচেয়ে বেশি। এর কারণ বিশ্বে ৫৫.০৮ শতাংশ মানুষ ইন্টারনেট ব্যবহার করছে তার মধ্যে ৭৫ শতাংশ মানুষ নিয়মিত সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে। তাই Social Media ও Digital মাধ্যমগুলো কে কাজে লাগিয়ে ব্যবসার পথ আরো সমৃদ্ধ হচ্ছে।

ডিজিটাল মার্কেটিং কত প্রকার কি কি ?

 

আপনাকে যদি কেউ বলে ডিজিটাল মার্কেটিং এর সব শিখিয়ে দেব, আমাদের কাছে কোর্স করেন । তাহলে প্রথম কথাতেই মনে করবেন  ঐ প্রতিষ্ঠান / ব্যাক্তি  বাটপার ! কারন ডিজিটাল মার্কেটিং এর মোট ৮ টি শাখা আছে । প্রতিটি শাখার কাজই আলাদা আলাদা । এবং ব্যাপক বিস্তৃত  । ডিজিটাল মার্কেটিং এর একটি কাজ যদি আপনি ভালো ভাবে শিখতে চেষ্টা করেন তাতেই আপনার অনেক সময় লেগে যাবে ।

আর যখন আপনি ডিজিটাল মার্কেটিং এর স্পেসিফিক কোন এক বিভাগে সফলতার সাথে কাজ করতে পারবেন তখন দেখবেন আনলাইন থেকে আপনার টাকা ইনকাম এর অভাব হবে না ।

ডিজিটাল মার্কেটিং মোট ৮ প্রকার যথা

 

  1. Search engine optimization (SEO)
  2. Search Engine Marketing  (SEM) 
  3. Content marketing
  4. Social Media Marketing(SMM) 
  5. Digital Display Marketing
  6. Mobile Marketing 
  7. Email Marketing 
  8. Affiliate Marketing

এই প্রতিটি বিষয় নিয়ে এই পোষ্টে বিস্তারিত লিখতে গেলে লেখা অনেক বড় হয়ে যাবে । যাষ্ট আপনি নাম গুলি মনে রাখুন । কোন প্রতিষ্ঠান যদি আপনাকে বলে ডিজিটাল মার্কেটিং শেখাবে । তাহলে তাকে প্রশ্ন করবেন ডিজিটাল মার্কেটিং এর কোন পার্ট টা শেখাবেন ।  এই প্রতিটি বিষয় নিয়েই আমি বিস্তারিত পোষ্ট লিখবো ইনশাআল্লাহ । তবে আপনারা এখনি যদি জানতে চান তাহলে এই প্রতিটি বিষয় গুগলে সার্চ করে জানতে পারেন ।

ব্লগিং করে ইনকাম ২০২৩

 

আচ্ছা আপনাকে যদি একটি কাজের কথা বলি । যে কাজটি একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত করার পর আর কাজ না করেও অটোমেটিক আপনার পকেটে টাকা চলে আসবে ! তাহলে কি সেই কাজটি আপনি করবেন ? আপনি হয়তো মনে মনে বলতেছেন অবশ্যই করবো । এই ধরনের কাজই দরকার। হ্যা বন্ধুরা ব্লগিং এমন একটি অনলাইন ইনকাম সিস্টেম যেখানে আপনি একটি নির্দিষ্ট সময় পর কাজ না করেও টাকা পাবেন । এই যেমন আমি পাচ্ছি ।

আমার একটি ব্লগিং সাইটে কাজ করি না মিনিমাম ৬  মাস হলো তবুও আমি সেই ব্লগ থেকে নিয়মিত টাকা পাচ্ছি আলহামদুলিল্লাহ । আমার কাছে অনলাইনে বিভিন্ন কাজের মধ্যে সবচেয়ে আরামদায়ক এবং পরিচ্ছন্ন কাজ মনে হয় ব্লগিং । তবে ব্লগিং করতে হলে আপনাকে ২টি কাজে সুপার দক্ষতা থাকতে হবে ।

১ । সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেনশ বা SEO 

২ । কনটেন্ট রাইটিং 

আপনি হয়তো মনে মনে ভাবছেন, তাহলে ব্লগিং শুরু করি । হ্যা শুরু করতে পারেন । ব্লগিং কি ? কিভাবে শুরু করা যায়  এই বিষয় এবং ব্লগিং শুরু থেকে এ টু জেড নিয়ে একটি ফ্রি ব্লগিং কোর্স চালু করেছি । কোর্সটি আপনিও শুরু করতে পারেন একদম বিনামূল্যে । কোর্সটি করতে এই লিংকে ক্লিক করুন ।

 

ওয়েব ডিজাইন / ডেভেলপমেন্ট করে অনলাইনে ইনকাম ২০২৩

 

আমার পরিচিত অনেকেই আছেন । যারা ওয়েব ডিজাইন বা ডেভেলপমেন্ট করেই ঘরে বসে অনলাইনে ইনকাম করতেছেন লাখ টাকা । টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় বাংলাদেশে যদি খুজে থাকেন তাহলে ওয়েব ডেভেলপার হতে পারেন । কারন ওয়েব ডেভেলপার দেশে এবং বিদেশে প্রচুর চাহিদা রয়েছে । একজন দক্ষ্য ওয়েব ডেভেলপারের মাসিক আয় ১ লাখ থেকে আনলিমিটেড টাকা ।

কি বিশ্বাস হচ্ছে না ? আপনার বিশ্বাস না হলেও আমার কিছু করার নেই কারন একজন দক্ষ ওয়েব ডেভেলপার সত্যিই এত পরিমান টাকা ইনকাম করে ।

কিভাবে ওয়েব ডেভেলপার হওয়া যায় ?

 

এখন হয়তো ভাবছেন কিভাবে ওয়েব ডেভেলপার হবেন তাই না ? ওয়েব ডেভেলপার হতে আপনাকে বেশ কিছু প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ জানতে হবে । বেসিক প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজে যেমন, HTML ,CSS  JAVA , জেকুয়েরি । এই বেসিক প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ গুলা জানলে আপনি ওয়েব পেজ ডিজাইন করতে পারবেন ।

এরপর আপনি ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শেখার জন্য আপনার পছন্দ অনুযায়ী প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ শিখতে পারেন । কারন বিভিন্ন ল্যাংগুয়েজ দিয়ে আপনি ওয়েব ডেভেলপমেন্ট করতে পারেন । কেউ আছেন যারা PHP দিয়ে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট করে থাকে । কেউ আছে পাইথন দিয়ে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট করেন । কেউবা আবার ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট করে থাকেন ।

তবে আপনি য়েভাবেই ওয়েব ডেভেলপার হন না কেন । আপনাকে সুপার দক্ষতা সম্পন্ন ওয়েব ডেভেলপার হতে হবে । আপনি যদি নিম্নমানের ডেভেলপার হন তাহলে আপনি কাজ পাবেন না । মনে মনে তখন আমাকে গালি দিবেন । তাই আমি সবসময় সবাইকে বলি যেই কাজই করুন না কেন মনোযোগ সহকারে দক্ষতা অর্জন করে সেই কাজ করুন । তবেই ধরা দিবে সফলতা ।

ওয়েব ডেভেলপার হয়ে কোথা থেকে ইনকাম করবো ?

 

অনেকের মনেই হয়তো  প্রশ্ন জেগেছে, এত কষ্ট করে ওয়েব ডেভেলপার হবো ,এরপর কাজ করবো কোথায় ইনকাম করব কিভাবে ।  আপনার মনে যদি সত্যিই এই প্রশ্ন থেকে থাকে তাহলে শুনুন । টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় বাংলাদেশে অনেক আছে । তার মধ্যে একটি হলো দেশের বিভিন্ন আইটি প্রতিষ্ঠানে প্রচুর ওয়েব ডেভেলপার দরকার হয় ।

আপনি যদি একজন দক্ষ্য ডেভেলপার হন তাহলে আপনি দেশেই চাকরি করার মাধ্যমে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারবেন । আর যদি আপনার চাকরি ভালো না লাগে । তাহলেও সমস্যা নাই  । আপনি ফ্রিলান্সার হিসেবে বিভিন্ন দেশের ক্লায়েন্টের কাজ করে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারেন ।

অনলাইনে বিভিন্ন মার্কেটপ্লেস আছে যেমন

  • আপওয়ার্ক
  • পিপুল পার আওয়ার
  • ফাইবার
  • ফ্রিলান্সার

সহ এরকম নামকরা আরো বেশকিছু অনলাইন প্লাটফর্ম আছে যেসব প্লাটফর্মে আপনি আপনার প্রোফাইল খুলে বিভিন্ন দেশের ক্লায়েন্টদের কে আপনি ওয়েব ডিজাইন/ ডেভেলপমেন্ট এর কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারেন ।

পড়ুন – অনলাইন ইনকাম বাংলাদেশী সাইট

কিভাবে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শিখবো ? 

 

দেশে বর্তমানে অনলাইনে অফলাইনে অনেক প্রতিষ্ঠান বের হয়েছে যারা ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শেখায় । তবে এসব প্রতিষ্ঠান বেশীরভাগই ভূয়া । অনলাইনের যেকোন কাজ শেখার জন্য আমার পরামর্শ থাকবে,  আগেই কোন প্রতিষ্ঠানের কোর্স এ ভর্তি না হওয়া । আগে ইউটিউব ও গুগল সার্চ করে ঐ কাজের বেসিকটা শিখে ফেলুন । বেসিক শেখার পর আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন । আপনার কি করতে হবে । কোথায় শিখতে হবে ।

 

শুরুতেই কোর্সে ভর্তি হওয়া বোকামী ছাড়া আর কিছুই না ।  আপনি যদি সত্যিই শিখতে চান তাহলে ইউটিউবে হিউজ পরিমান রিসোর্স দেওয়া আছে । আপনি যাষ্ট খুজে বের করে শিখে ফেলুন ।

গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে আয় ২০২৩

 

অনলাইনে টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় যদি জানতে চান তাহলে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে পারেন । আপনারা যারা বলেন, কিভাবে টাকা ইনকাম করবো তারা এই কাজটি শিখে মাসে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারেন । কারন বর্তমানে গ্রাফিক্স ডিজাইনের চাহিদা আকাশচুম্বি ।

বাংলাদেশে অনলাইনে টাকা ইনকাম করার উপায় অনেক থাকলেও  গ্রাফিক্স ডিজাইন তার মধ্যে অন্যতম । যারা একটু ক্রিয়েটিভ চিন্তাধারার মানুষ তারা  খুব সহজেই গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে লাখ টাকা ইনকাম করতে পারবেন ।

গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে ঘরে বসে আয় করার সহজ উপায়

 

গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখে আপনি সহজেই ঘরে বসে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারবেন । আপনি বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে বাহিরের দেশের ক্লায়েন্টদের ডিজাইন করে দিয়ে ইনকাম করতে পারবেন । এছাড়াও ক্রিয়েটিফেব্রিকা, শুটারস্টক সহ এরকম আরো অনেক প্লাটর্ফম আছে যেগুলাতে আপনি সুন্দর সুন্দর ডিজাইন করে রাখলেন ওখানে যতবার আপনার করা ডিজাইন সেল হবে ততবারই আপনি কমিশন পাবেন ।

এছাড়াও আপনি যদি চান দেশের অভ্যান্তরেই অনেক প্রতিষ্ঠানে আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইনার হিসেবে চাকরি করে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারবেন ।  আপনি যদি দক্ষ্য ডিজাইনার হন । তহলে আপনি Amazon Kdp তে বই ডিজাইন করে আপলোড করতে পারেন । বই আপলোড করার পর আপনার বই যতবার বিক্রি হবে ততবার আপনি কমিশন পাবেন । ব্লগিং এর মত এটাও  একটি খবুই ইন্টারেস্টিং পেশা ।

এমাজন কেডিপি কি ? কিভাবে এমাজন কেডিপি থেকে ইনকাম করবেন এ বিষয়ে যদি আপনার চান তাহলে একটি লেখা লিখতে পারি ইনশাআল্লাহ ।

কিভাবে গ্রাফিক্স ডিজাইন শেখা যায়  

 

দেশে বর্তমানে অনলাইনে অফলাইনে অনেক প্রতিষ্ঠান বের হয়েছে যারা গ্রাফিক্স শেখায় । তবে এসব প্রতিষ্ঠান বেশীরভাগই ভূয়া । অনলাইনের যেকোন কাজ শেখার জন্য আমার পরামর্শ থাকবে । আগেই কোন প্রতিষ্ঠানের কোর্স এ ভর্তি না হয়ে । আগে ইউটিউব ও গুগল সার্চ করে ঐ কাজের বেসিকটা শিখে ফেলুন । বেসিক শেখার পর আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন । আপনার কি করতে হবে । কোথায় শিখতে হবে ।

ফেসবুক থেকে ইনকাম ২০২৩

একটা কথা মাথায় রাখবেন যেখানেই জনসমাগম সেখানেই ইনকামের রাস্তা পাওয়া যায়। বর্তমানে ফেসবুক ব্যাবহার করে না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া কঠিন। আমি আপনি কম বেশী সবাই ফেসবুক ব্যাবহার করে থাকি।

এতদিন হয়তো আপনি ফেসবুক ব্যাবহার করেছেন,  যাষ্ট বিনোদন এবং বন্ধু বান্ধবীর সাথে যোগাযোগ করার জন্য।  কিন্তু আজকে আমি আপনাদের এই ফেসবুক ব্যাবহার করে কিভাবে ইনকাম শুরু করবেন সেটা জানাবো ইনশাআল্লাহ।

ফেসবুক পেজ থেকে ইনকাম করার উপায় 

আপনি ফেসবুক পেজ দিয়ে মাসে হাজার হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন। প্রথমে  ফেসবুক পেজ খুলতে হবে হবে। ফেসবুক পেজে নিয়মিত ভিডিও আপলোড দিতে হবে।  এরপর আপনার ফেসবুক পেজটি মনিটাইজেশন হলে, এরপর আপনার পেজে আপলোড করা ভিডিওতে ফেসবুক কতৃপক্ষ এড শো করাবে এবং আপনাকে ঐ এড দেখানোর মাধ্যমে ইনকাম করতে পারেন। আর বিস্তারিত জানতে পড়ুন

ফেসবুক পেজ থেকে ইনকাম করার উপায় ২০২৩

 

( বিঃদঃ অনেক আলেম ওলামা বলে থাকেন এড দেখিয়ে ইনকাম করা জায়েজ হবে না।  কেননা এখানে অশ্লীল বিজ্ঞাপন থাকে।  তাই বিষয়টি ভেবে চিন্তে কাজ করতে পারেন।)

ফেসবুক পেজ বিক্রি করে অনলাইন ইনকাম

 

অনেক বড় বড় ফেসবুক পেজ বেশ ভালো দামে বিক্রি হয়। আপনি যদি একটি পেজ খুলে সেই পেজটি নিয়মিত সময় দিয়ে বেশ বড় করতে পারেন তাহলে সেই পেজ বিক্রি করে ভালো টাকা পাবেন। কোয়ালিটি ভেদে প্রতিটি ফেসবুক পেজ ৫ হাজার থেকে ৫ লাখ বা তারও বেশি টাকা বিক্রি করা যায়।

শুধু পেজ না এভাবে ফেসবুক গ্রুপও আপনি বিক্রি করতে পারবেন। ১ লাখ মেম্বারের একটি ফেসবুক গ্রুপ ৭ থেতে ১৪ হাজার টাকা পর্যন্ত বিক্রি করা যায়।

ফেসবুকে বিভিন্ন পন্য বিক্রি করে ইনকাম

 

আপনি চাইলে ফেসবুকের মাধ্যমে বিভিন্ন পণ্য বিক্রি করে অনলাইন ইনকাম করতে পারেন। ফেসবুকে এখন প্রায় সব ধরনের পণ্যই বিক্রি হয়।  ফেসবুকে কি কি পণ্য বিক্রি হয় তা দেখতে এই গ্রুপ ঘুরে দেখে আসতে পারেন।

কন্টেন্ট রাইটিং করে অনলাইন ইনকাম ২০২৩

 

আপনি যদি ভালো লেখালেখি করতে পারেন। যে কোন বিষয়ে সুন্দর গোছালো লিখতে পারেন, তাহলে আপনি বিভিন্ন বিষয়ে কন্টেন্ট লিখে ইনকাম করতে পারেন।

কন্টেন্ট রাইটিং শিখে আপনি নিজেও ব্লগিং করতে পারেন। এছাড়াও আপনি অন্য কাওকে কন্টেন্ট লিখে দিয়ে ইনকাম করতে পারবেন।

ইউটিউব থেকে আয় ২০২৩

 

ফেসবুক পেজের মত ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করেও অনলাইন ইনকাম করা যায়।  ইউটিউব থেকে আয় করার জন্য একটি ইউটিউব চ্যানেল। আপনার যদি একটি ইউটিউব চ্যানেল থাকে সেখানে নিয়মিত ভিডিও আপলোড করে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করতে পারেন।

ইউটিউব থেকে ইনকাম করার উপায় জানতে পড়ুন এই লেখাটি

আপনার যদি ইউটিউব চ্যানেল না থাকে, তবে এখনি একটি ইউটিউব চ্যানেল খুলে ফেলুন। কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল খুলতে হয় যদি না জানেন তাহলে এই লেখাটি পড়ুন

পড়ুন – ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম

CPA মার্কেটিং করে ইনকাম ২০২৩

 

বর্তমানে আরো একটি জনপ্রিয় অনলাইন ইনকাম মাধ্যম হলো CPA মার্কেটিং। তবে আমার কাছে CPA মার্কেটিং করে ইনকাম করা তেমন ভালো লাগে না। কারন CPA মার্কেটিং এখন বেশীরভাগই প্রতরণা টাইপের কাজ। ইউজারদের সাথে প্রতরণা করা হয় আর কি!  তবে আপনারা চাইলে এ ব্যাপারে ইউটিউব ঘেটে ধারনা নিতে পারেন। মন চাইলে কাজও করতে পারেন।

ফ্রিলান্সিং করে ইনকাম ২০২৩

 

আপনার যদি ব্লগিং ভালো না লাগে। ইউটিউবিং ভালো না লাগে ।  লেখা লেখি Seo এসবের প্যারা না নিতে চান।  তবে আপনি ফ্রিলান্সিং করে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারেন। মজার ব্যাপার হলো অনলাইন থেকে যারা ইনকাম করেন।  তাদের প্রায় ৭০% মানুষ ফ্রিলান্সিং করে আয় করে থাকেন।

ফ্রিলান্সিং কি ? 

 

এখন মনে প্রশ্ন আসতে পারে ফ্রিলান্সিং কি?  ফ্রিলান্সিং হলো মুক্ত পেশা। আপনি ঘরে বসেই যেকোন দেশের যে কারো কাজ করে দিতে পারেন।

ফ্রিলান্সিং করার জন্য কি কি লাগবে ? 

 

আপনি চাইলেই ফ্রিলান্সার হতে পারবেন না। সফল ফ্রিলান্সার হতে হলে আপনাকে যে কনো কাজে দক্ষতা অর্জন করতে হবে।  হোক সেটা গ্রাফিক্স ডিজাইন,  ওয়েব ডিজাইন / ডেভেলপমেন্ট, ডিজিটাল মার্কেটং ইত্যাদি। অনলাইনে পাওয়া যায় এরকম যেকোন কাজেই আপনি দক্ষতা অর্জন করলে আপনি প্রচুর কাজ পাবেন।

আমার পরিচিত একজন আছে যিনি শুধু গ্রাফিক্স ডিজাইন নিয়ে কাজ করে।  বয়সে আমার চেয়ে অনেক ছোট।  কিন্তু তার মাসিক অনলাইন ইনকাম এখন  ১০০০   ডলার।   যদিও ইনকাম টা অনন্য বড় বড় ফ্রিল্যান্সারদের থেকে অনেক কম।  কিন্তু ওর বয়স হিসেবে, কাজ হিসেবে, ও  অনেক ভালো পরিমাণ টাকা ইনকাম করে অনলাইন থেকে।

আমার এক বন্ধু আছে সে ওয়ার্ডপ্রেস  ডেভেলপমেন্ট নিয়ে কাজ করে।  সেও ভালো পরিমাণ অনলাইন ইনকাম করে।  আসলে মূলত  ইনকাম করতে হলে আপনার কাজের ওপর দক্ষতা থাকতে হবে।  এই যেমন ধরুন আপনার একটা প্রতিষ্ঠান আছে আপনি সেখানে কর্মী নিয়োগ দেবেন।  তো আপনি এমন কাউকে নিয়োগ দেবেন না।  যে কিনা আপনার প্রতিষ্ঠান যে কাজগুলো করতে হয় সেগুলো সে করতে পারে না।

 

আপনি এরকম কাউকে নিয়োগ দিয়ে কিন্তু তাকে বেতন দেবেন না ঠিক।  তেমনি অনলাইনেও আপনাকে কেউ হায়ার করবেনা।   যদি না আপনি কাজ না পারেন।  আপনি যদি কাজ করেন তাহলে আপনাকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে  হায়ার করা হবে।  আপনি যদি গ্রাফিক্স ডিজাইন পারেন তাহলে আপনাকে গ্রাফিক্স ডিজাইনের যারা কাজ করায়  তারা হায়ার করবে।  আপনি যদি ওয়েব ডিজাইন ডেভলপমেন্ট পারেন তাহলে বিশ্বের যেকোনো প্রান্তের যার ওয়েবসাইট ডিজাইন দরকার যার ওয়েবসাইট ডেভেলপমেন্ট দরকার সে আপনাকে খুঁজবে।

ঘরে বসে আয় করার সহজ উপায় 

 

এইভাবে অনলাইনে আরো অনেক কাজ পাওয়া যায়।  যদি আপনি দক্ষতা অর্জন করতে পারেন তাহলে আপনি ঘরে বেশি ফ্রিল্যান্সিংয়ের মাধ্যমে মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

আরেকটি কথা সেটা না বললেই নয়।  ফ্রিল্যান্সিং এ সফলতা অর্জন করতে হলে আপনাকে ইংরেজিতে দক্ষতা অর্জন করতে হবে।  আপনি যদি ইংরেজিতে ভালো দক্ষতা দেখাতে পারেন। আপনি বাইরের লোকদের সাথে ইংরেজিতে কমিউনিকেশন করতে পারেন।  তাহলে আপনার ফ্রিল্যান্সিং করাটা সহজ হবে।

অনলাইন ইনকাম
অনলাইন ইনকাম

আমি বলছি না যে ইংরেজি না জানলেই আপনি ফ্রিল্যান্সিং করতে পারবেন না এমনটি না।  কিন্তু যদি আপনি ইংরেজি জানেন তাহলে আপনার কাজের গতি টা বেড়ে যাবে।  আপনার কাজটা ভাল ভাবে করতে পারবেন।  ক্লায়েন্টের কাজ গুলো আপনি সুন্দর ভাবে বুঝিয়ে নিতে পারবেন।  তাঁকে কাজ গুলো বুঝিয়ে দিতে পারবেন।

 

যেকোন সমস্যায় আপনি তার সাথে ভালো ভাবে আলোচনা করে সমস্যাটা সমাধান করে দিতে পারবেন।  মোটকথা কমিউনিকেশন ল্যাংগুয়েজটা যদি আপনার ভাল হয় তাহলে আপনি ওই কাজটা খুব সহজ ভাবে দ্রুততার সাথে করতে পারবেন।  ফ্রিল্যান্সিংয়ে আসতে হলে আপনার বিষয়টা মাথায় রাখা অতি জরুরী ।

এফিলিয়েট মার্কেটিং করে অনলাইন ইনকাম ২০২৩

 

আপনি যদি SEO পারেন । কন্টেন্ট রাইটিং সমন্ধে যদি আপনার মোটামুটি ধারনা থাকে । তাহলে আপনি এফিলিয়েট মার্কেটিং ট্রাই করতে পারেন । কারন  একটি এফিলিয়েট সাইট যদি আপনি দার করাতে পারেন । তাহলে আপনার আর পিছনে ফিরে তাকাতে হবে না । তবে এরজন্য আপনার এসইও এবং কন্টেন্ট রাইটিং, এবং এফিলিয়েট মার্কেটিং সমন্ধ্যে বিস্তর ধারনা থাকতে হবে ।

বর্তমানে বিশ্বে বিভিন্ন এফিলিয়েট প্লাটর্ফম আছে । তবে তার মধ্যে সবচেয়ে বহুল প্রচলিত এবং জনপ্রিয় এফিলিয়েট প্লাটফর্ম হলো এমাজন । এমাজন এফিলিয়েট নিয়ে অন্য একদিন বিস্তারিত কথা বলার চেষ্ট করবো ইনশাআল্লাহ ।

টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় বাংলাদেশে 

টাকা তো বিভিন্নভাবেই ইনকাম করা যায় । তবে বাংলাদেশ থেকে  অনলাইনের মাধ্যমে টাকা ইনকাম করার সকল উপায় গুলি নিয়ে আলোচনা করার চেষ্টা করেছি ।  এখন আমি নিচে একটি লিষ্ট দিয়ে দিচ্ছি । কোন কাজটি শিখতে কেমন সময় লাগবে । আর কঠিন কেমন ।

 

ফ্রিল্যান্সিং কাজ

কতটা কঠিন?এন্ট্রি লেভেল শিখতে সম্ভাব্য প্রয়োজনীয় সময়

প্রয়োজনীয় স্কিল

ডিজিটাল মার্কেটিংমাঝারি১-২ বছরমার্কেটিং স্ট্র্যাটেজি, সোশ্যাল মিডিয়া পেইড মার্কেটিং, কনটেন্ট মার্কেটিং, সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং, ইমেইল মার্কেটিং
কন্টেন্ট রাইটিংমাঝারি০-১ বছরশব্দ, বাক্য ও ভাষার দক্ষতা, বাংলা ও ইংরেজি ভাষার ভোকাবুলারি, বানান ও ব্যাকরণের দক্ষতা, মাইক্রোসফট ওয়ার্ডের দক্ষতা, লেখার পারদর্শিতা
কপি রাইটিংমাঝারি৬ মাস – ১৮ মাসক্রিটিকাল ও ক্রিয়েটিভ থিংকিং, রিসার্চ, লেখার পারদর্শিতা, বাংলা ও ইংরেজি ভাষার ভোকাবুলারি, বানান ও ব্যাকরণের দক্ষতা
গ্রাফিক ডিজাইনিংমাঝারি৬ মাস – ১ বছরঅ্যাডোবি ক্রিয়েটিভ সফটওয়্যার ব্যবহার দক্ষতা, বেসিক HTML, কম্পিউটারাইজড স্কেচিং, কালার থিওরি, ফন্ট সিলেকশন, টাইপোগ্রাফি, সৃজনশীলতা
ভিডিও এডিটিংবেশ কঠিন৬ মাস – ১ বছরভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার ব্যবহারের জ্ঞান, ডিজিটাল টেকনোলজির দক্ষতা, থ্রিডি কম্পোজিশন ও স্পেশাল ইফেক্ট ব্যবহারের জ্ঞান, সৃজনশীলতা
ইউজার ইন্টারফেস (UI) ডিজাইনিং বেশ কঠিন১-২ বছরফিগমা ও স্কেচসহ অন্যান্য ইউ আই ডিজাইনিং সফটওয়্যার ব্যবহারের জ্ঞান, ওয়েব ডিজাইনিং ও গ্রাফিক ডিজাইনিং স্কিল, ওয়্যারফ্রেম তৈরি, টাইপোগ্রাফি, কালার থিওরইর, প্রোটোটাইপিং
ওয়েব ডেভেলপমেন্টবেশ কঠিন৬ মাস – ১ বছরTML/CSS দক্ষতা, জাভাস্ক্রিপ্ট দক্ষতা, টেস্টিং ও ডিবাগিং দক্ষতা, ব্যাক-এন্ড বেসিক, এসইও দক্ষতা, রেস্পন্সিভ ডিজাইন দক্ষতা, গিটহাবের ব্যবহার
ডাটা এন্ট্রিসহজ৩-৬ মাসটাইপিং দক্ষতা, বেসিক সফটওয়্যার জ্ঞান, অফিস ইকুইপমেন্ট চালানোর দক্ষতা, বেসিক রিসার্চ ও ডাটা কালেকশন স্কিল

টেবিলটি ১০ মিনিট স্কুল থেকে নেওয়া

অনলাইনে ছবি বিক্রি করে ইনকাম 

 

আপনি যদি ভালো ছবি তুলতে পারেন । বা আপনার সংগ্রহে থাকা যদি ভালো কোন ছবি থাকে তবে আপনি চাইলে অনলাইনে ছবি বিক্রি করে টাকা ইনকাম করতে পারেন ।  তবে শর্ত হলো ছবির মান ভালো হতে । হাই রেজুলেশনের ছবি হতে হবে ।

এসব সাইটে কাজ করতে হলে , প্রথমেই আপনাকে ঐ সব সাইটে একটি একাউন্ট খুলতে হবে । এবং আপনার তোলা কিছু ছবি সাবমটি করতে হবে । ওরা আপনার ছবি এবং আপনার প্রোফাইল য়াছাই বাছাই করে যদি ওদের কাছে সন্তোষ জনক মনে হয়  তাহলে আপনার একাউন্টটি এপ্রুভ দিবে ।

যখন আপনার একাউন্ট এপ্রুভ হবে । তখন আপনি নিয়মিত আপনার ছবি আপলোড করবেন । সকল যাছাই প্রক্রিয়া শেষ হবার পর ছবি গুলা এপ্রুভ হলে তখন সবাই দেখতে পাবে । এবং গ্রাহকের পছন্দ হলে ছবি কিনে নিবে । আর প্রতিটি ছবি বিক্রির টাকা থেকে আপনি কমিশন পাবেন ।

জনপ্রিয় কিছু ছবি বিক্রি করে টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট

  • Shutterstock
  • Fotolia
  • GettyImages
  • iStock
  • Dreamstime

ডোমেইন নেম কেনা বেচা করে অনলাইন ইনকাম 

 

এই কাজগুলা যদিও নতুনদের জন্য না । কারন ডোমেইন নেম কেনা বেচা করে ইনকাম করতে চাইলে ডোমেইন বিষয়ে ব্যাপক জ্ঞান থাকতে হবে । যাষ্ট আপনাদের ধারনা দেবার জন্য বিষয়টি বলে রাখলাম আরকি । এক্সপেয়ার্ড ডোমেইন কিনে আপনি সেই ডোমেইনগুলা বেশ ভালো দামে বিক্রি করতে পারবেন ।

জনপ্রিয় কিছু ডোমেইন বাইসেল সাইট

 

  • GoDaddy
  • Freemarket
  • Namecheap auction
  • Sedo
  • Flippa

অনলাইনে টিউটর হিসেবে আয় 

 

আপনারা হয়তো অনেকেই টিউশনি করে টাকা ইনকাম করেন । মজার বেপার হলো এখন অনলাইনেও টিউশনি করা যায় । কি চমকে উঠলেন ? না চমকানোর কিছু নাই । আপনি যদি কোন বিষয়ে দক্ষ্য হয়ে থাকেন । যেমন গ্রাফিক্স ডিজাইন, ওয়েব ডিজাইন, ডিজিটাল মার্কেটিং , বা স্কুল টিচার । আপনি অনলাইনে ঘরে বসে আপনার জ্ঞান বিতরণ করার মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারেন । যাকে বলে ডিজিটাল টিউশনি ।

 অনলাইনে ইনকাম করার আগে কিছু বিষয় মাথায় রাখা দরকার 

অনলাইনে ইনকাম শুরুর আগে ভালভাবে খেয়াল করবেন যে সাইটে আপনি কাজ করবেন সেই সাইটটি বিশ্বস্ত কিনা । অনেক সাইট আছে যেগুলা আপনাকে লোভনিয় বিভিন্ন অফার দেবে কাজের জন্য । কিন্তু কাজ কম্পিল্ট করার পর আপনাকে পেমেন্ট দেবে না । তাই কাজ করার আগে নিশচত হবেন ঐ সাইটটা ট্রাস্টেড কিনা ।

অনলাইনে ইনকাম বিকাশ পেমেন্ট

অনলাইনে কিভাবে ইনকাম করা যায় সেটা তো জানলেন । এখন হয়তো ভাবছেন কিভাবে আয় করা টাকা পকেটে নিয়ে আসবেন । চিন্তা নাই । আপনি যদি বাংলাদেশী সাইট থেকে ইনকাম করে থাকেন তাহলে তো বিকাশ রকেট নগদের মাধ্যমে বা যেকোন ব্যাংকের মাধ্যমে টাকা আনতে পারবেন ।

আর যদি আন্তর্জাতিক কোন সাইট থেকে টাকা উত্তলন করতে চান । তাহলে আপনার একটি পেওয়নিয়র একাউন্ট লাগবে । এবং পেওয়নিয়ার একাউন্টে প্রথমে টাকা ট্রান্সফার করে সেখান থেকে আপনি বাংলাদেশের যেকোন ব্যাংকে অথবা বিকাশের মাধ্যমে টাকা উত্তলন করতে পারবেন ।

শেষকথা  

অনলাইনে ইনকাম ২০২৩ – টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় বাংলাদেশে শিরোনামে আজকের লেখাটি এখানেই শেষ করতে চাচ্ছি । আজকের এই লেখা থেকে যদি আপনারা বিন্দু পরিমান উপকৃত হতে পারেন তবেই আমি সার্থক । অনলাইন ইনকাম বিষয়ক কোন হেল্প লাগলে বা কোন বিষয় না বুঝলে আমাদের কমেন্ট করে জানাতে পারেন । আমরা চেষ্টা করবো আপনাকে সব রকম সহযোগীতা করার ইনশাআল্লাহ ।

রিলেটেড ট্যাগঃ

 

অনলাইন ইনকাম
স্টুডেন্ট অনলাইন ইনকাম
সরকারি অনলাইন ইনকাম
বাংলাদেশ অনলাইন ইনকাম
ভিডিও দেখে অনলাইন ইনকাম
রাইড শেয়ারিং থেকে আয় করার উপায় অনলাইন ইনকাম
বেস্ট অনলাইন ইনকাম সাইট
রিয়েল অনলাইন ইনকাম
বাংলাদেশের অনলাইন ইনকাম সাইট
সরকার অনুমোদিত অনলাইন ইনকাম সাইট
অনলাইন ইনকাম সাইট ২০২২
অনলাইন ইনকাম অ্যাপ
অনলাইন ইনকাম অ্যাপ ২০২২
অনলাইন ইনকাম করার অ্যাপ
অনলাইন টাকা ইনকাম অ্যাপ
অনলাইন ইনকাম আইডিয়া
অনলাইন আউটসোর্সিং আয়
অনলাইন ইনকাম ইন বাংলাদেশ
অনলাইন এ ইনকাম
অনলাইনে ইনকাম করার উপায়
অনলাইন থেকে ইনকাম করার উপায়
অনলাইন ইনকাম ওয়েবসাইট
অনলাইনে ইনকাম করার ওয়েবসাইট
কম্পিউটার অনলাইন ইনকাম
কিছু অনলাইন ইনকাম
ঘরে বসে অনলাইন ইনকাম
অনলাইনে ইনকাম করতে চাই
অনলাইন ইনকাম মোবাইল দিয়ে

 

Related Articles